জলপাইগুড়ি: আসন্ন সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে অশান্তি এড়াতে সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রশাসন৷ পশ্চিমবঙ্গের সীমান্ত অঞ্চলগুলিতে বাড়ানো হতে চলেছে নিরাপত্তা৷ প্রতিবেশী বাংলাদেশ থেকে এ রাজ্যে অনুপ্রবেশের সমস্যা বহুদিনের৷ বিষয়টি নিয়ে সময়ে সময়ে সরব হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে দিলীপ ঘোষ৷

ভারতের সাথে বাংলাদেশ,ভুটান সীমান্তের নিরাপত্তা নিয়ে আগামী সোমবার জলপাইগুড়ি তে জরুরী বৈঠক বসতে চলেছে৷ জলপাইগুড়ির বিভাগীয় কমিশনার থাকবেন এই বৈঠকে৷ জেলা নির্বাচন আধিকারিক তথা জেলা শাসক শিল্পা গৌরিসারিয়া এই খবর জানিয়েছেন৷ বিশেষজ্ঞদের মতে প্রতিবেশি রাজ্য থেকে অনুপ্রবেশিকারীরা রাজ্যে ঢুকে পড়ে লোকসভা ভোটের আগে বা ভোট চলাকালীন কোনরকম ঝামেলা যাতে না পাকাতে পারে তারই ব্যবস্থা নিতে এই বৈঠক৷

জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, দার্জিলিং জেলার এসপি,ডিএম,এসএসবি এবং বিএসএফের পদস্থ আধিকারিকেরা উপিস্থিত থাকবেন সোমবারের বৈঠকে৷ নির্বাচনের আগে থেকে কিভাবে আন্তর্জাতিক সীমান্তে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা যায় সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে৷

তিনি আরও জানান প্রার্থীদের নির্বাচনের খরচ নিয়েও আমরা নজরদারি চালাচ্ছি কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী৷ সীমা্তের ওপার থেকে বিভিন্ন হাওয়ালার মাধ্যমে বড় অংশের কালোটাকা দেশের মধ্যে ঢোকে৷ এই কালোটাকা ব্যবহার করা হতে পারে ভোট কেনাবেচার জন্য, এমনটাই উদ্বেগ রাজ্নৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের৷ এই কালোটাকা রাজ্যে ঢোকা থেকে আটকাতেই সীমান্তে কড়া হচ্ছে রক্ষীরা৷