নয়াদিল্লি: আকাশ পথে শক্তি বাড়াল ভারত৷ ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে এল ৮টি অ্যাপাচে হেলিকপ্টার৷ বোয়িং এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচি গার্ডিয়ান অ্যাটাক হেলিকপ্টার মঙ্গলবার থেকে যুক্ত হল ভারতীয় বায়ুসেনায়৷ পাঠানকোট বায়ুসেনা ঘাঁটিতে নিয়ে আসা হয় কপ্টারগুলিকে৷

এয়ার মার্শাল বি এস ধানোয়া এই অনুষ্ঠানের মুখ্য অতিথি ছিলেন৷ তার হাত ধরেই উদ্বোধন করা হল কপ্টারগুলির৷ মোট ২২টি কপ্টার নিয়ে আসা হবে৷ প্রাথমিকভাবে ৮টি কপ্টার পেল ভারত৷ ভারতীয় বায়ুসেনার পিআরও বা জনসংযোগ আধিকারিক অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন আপাতত ৮টি এয়ারক্রাফট এলেও, মোট ২২টি এই ধরণের অ্যাপাচি আসার কথা রয়েছে৷ ভারতীয় বায়ুসেনার কাছে অ্যাটাক হেলিকপ্টার থাকলেও, অ্যাপাচি অনেকটাই মনোবল বাড়াবে ও শক্তি যোগাবে ভারতীয় বায়ুসেনায়৷

অ্যাপাচি হেলিকপ্টার সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে মার্কিন সেনাবাহিনী। এছাড়া জাপান, ইজরায়েল, গ্রিস, নেদারল্যান্ডস, সিঙ্গাপুর এবং আরব আমীরাতও অ্যাপাচি হেলিকপ্টার ব্যবহার করে থাকে। এবারও ভারতও সেই তালিকায় সামিল হল৷

জানা গিয়েছে ২০১৮ সালের জুলাইয়ে প্রথম পরীক্ষামূলক উড়ান হয় এই অ্যাপাচি হেলিকপ্টারের৷ বলাই বাহুল্য সফলও হয় সেই উড়ান৷ বলা হয় বোয়িং এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচি গার্ডিয়ান অ্যাটাক হেলিকপ্টার বিশ্বের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক কপ্টারগুলির মধ্যে অন্যতম৷ ২০১৯ সালের ২৭শে জুলাই ভারত প্রথম হাতে পায় অ্যাপাচি হেলিকপ্টার৷ গাজিয়াবাদের বায়ুসেনা ঘাঁটিতে নিয়ে আসা হয় এই কপ্টারগুলিকে৷ বেশ কয়েকবার পরীক্ষামূলক উড়ানের পর চূড়ান্ত পর্বের অনুমোদনের জন্য নিয়ে যাওয়া হল পাঠানকোট বায়ুসেনা ঘাঁটিতে৷

ভারতীয় বায়ুসেনা সূত্রে খবর, এমআই-৩৫ চপারের বিকল্প হিসেবে এই অ্যাপাচি হেলিকপ্টার নিয়ে আসা হয়েছে৷ গোটা কর্মকাণ্ড পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে গ্রুপ ক্যাপ্টেন এম শায়লুকে৷  জানা গিয়েছে, অ্যাপাচি হেলিকপ্টার যে কোনও পরিস্থিতিতে কাজ করতে সক্ষম৷ সব রকম যুদ্ধে অংশ নিতেই সক্ষম অ্যাপাচি৷

কপ্টারটি লেজার ও ইনফ্রারেড সিস্টেম অত্যাধুনিক মানের৷ এর চপার থেকে অ্যান্টি ট্যাংক হেলফায়ার মিসাইলও ছোঁড়া যেতে পারে৷ রয়েছে হাইড্রা আনদাইডেড রকেট, যা মাটির লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুল ভাবে আঘাত করতে সক্ষম৷ অ্যাপাচি হেলিকপ্টার ঘণ্টা প্রতি ১৫০ নটিক্যাল মাইল গতিতে উড়তে পারে৷