ফাইল ছবি

রায়পুর: সোমবার নির্বাচন রাজ্যে৷ তার আগে গোপন সূত্রে পাওয়া খবরে রীতিমতো সতর্ক পুলিশ৷ গোয়েন্দা দফতর সূত্রে খবর নির্বাচনের আগে ছত্তিশগড়ে বড়সড় নাশকতা চালাতে পারে মাওবাদীরা৷ এই উদ্দ্যেশ্যে মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা ও ওডিশার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছত্তিশগড়ে গোপন ঘাঁটি তৈরি করেছে মাওবাদীদের একাধিক স্কোয়াড৷

তাদের লক্ষ্য ছত্তিশগড়ের যেসব এলাকায় নির্বাচন চলবে, সেখানে নাশকতা চালানো৷ সাধারণ মানুষের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করা, যাতে কোনওভাবেই ভোটপ্রক্রিয়া সুষ্ঠু ভাবে না সম্পন্ন হয়৷ তবে পুলিশ তৈরি রয়েছে বলে জানালেন এক উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিক৷ রাজ্যে নির্বাচনের প্রথম দফা সোমবার৷ দ্বিতীয় দফার ভোটগ্রহণ নভেম্বরের ২০ তারিখ৷

তবে ইতিমধ্যে আতঙ্ক ছড়ানোর লক্ষ্যে খানিকটা সফল মাওবাদীরা৷ সকালেই পরপর সাতটি বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে ছত্তিশগড়৷ অন্তগড় গ্রামের কাঙ্কারে সাতটি আইইডি বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা৷ এই হামলায় এক বিএসএফ এএসআই গুরুতর জখম হয়েছেন৷ তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷

অপরদিকে রাজধানী রায়পুর থেকে ১৮০ কিমি দুরে বীজাপুরের জঙ্গলে নিরাপত্তা বাহিনী ও মাওবাদীদের মধ্যে শুরু হয় গুলির লড়াই৷ সূত্রের খবর, এলাকায় টহল দেওয়ার সময় নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে হামলা করে মাওবাদীরা৷ শুরু হয় এনকাউন্টার৷ নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এক মাওবাদী মারা গিয়েছে৷ আরও একজনকে জীবিত ধরা হয়েছে৷ এলাকা থেকে প্রচুর অস্ত্র উদ্ধার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী৷

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ আধিকারিক জানান, সফট টার্গেট বেছে নিচ্ছে মাওবাদীরা৷ তারপর হামলা চালানো হচ্ছে৷ যেসব জায়গাগুলি স্পর্শকাতর, সেখানে হামলা না চালিয়ে, কম গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে মাওবাদীরা৷ এই সব এলাকায় তাই পুলিশি টহলদারি বাড়ানো হয়েছে৷ তবে সুকমা ও দান্তেওয়াড়া এলাকায় প্রায় ১৫০ জন সশস্ত্র মাওবাদী সক্রিয় রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷

কিভাবে হামলা চালাতে পারে মাওবাদীরা? পুলিশ বলছে মাওবাদীরা ব্যবহার করতে পারে ‘বুবি ট্র্যাপ’ বা আপাত দৃষ্টিতে নিরীহ বস্তুকে ফাঁদ হিসেবে ব্যবহার করে বিস্ফোরক রাখার পদ্ধতি৷ এছাড়া জঙ্গলের মধ্যে পুঁতে রাখা হতে পারে কনসিলড স্পাইকস বা মাইন৷ বিশেষ করে বস্তারে এই ধরণের পদ্ধতি ব্যবহার করা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে৷ স্থানীয়দের সহযোগিতায় এই বুবি ট্র্যাপ বানানোর কাজ করেছে মাওবাদীরা বলে খবর৷ এরকম প্রায় ৫০০টি বুবি ট্র্যাপ বানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

এছাড়াও ভোট বানচাল করতে ভোটকেন্দ্র লুঠ, ইভিএম নষ্ট করার মতো একাধিক পদক্ষেপ নিতে পারে মাওবাদীরা৷ সোমবার মাও অধ্যুষিত ১৮টি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট৷ তার মধ্যে রয়েছে এই এলাকাগুলি৷ মাওবাদীরা শুরু থেকেই ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছে৷