ভাঙড়: গভীর রাতে বোমাবাজি চলল দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ভাঙড় এলাকায়। অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে। আরও ভালভাবে বললে, এই ঘটার জন্য আরাবুল বাহিনীকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন- ভগবানপুরে গুলিবিদ্ধ দুই বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত তৃণমূল

শনিবার গভীর রাতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাঙড় বিধানসভা কেন্দ্রের বামনঘাটা। ওই এলাকার হাটগাছায় ব্যাপক বোমাবাজি চালান হয় বলে অভিযোগ। বেশ কয়েকটি বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। শুধু বোমাবাজি নয়, অনেক জায়গায় এলোপাথাড়ি গুলি ছোঁড়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন- কাঁথিতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতাকে আটক করল পুলিশ

খুব স্বাভাবিকভাবেই গভীর রাতের এই ঘটনার জেরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে বিস্তীর্ণ এলাকায়। একই সঙ্গে সাধারণ মানুষের মধ্যে ছড়িয়েছে তীব্র আতঙ্ক। হাটগাছার মহিলা বাসিন্দারা জানিয়েছেন যে রাত দেরটা নাগাদ আচমকা বোমা-গুলির আওয়াজ শোনা যায়। কয়েকটি বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়া হয়। একই সঙ্গে অনেক গুলিও ছোঁড়া হয়।

ভাঙড় এলাকাটি যাদবপুর লকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম দফায় ওই কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে। বাম, বিজেপি এবং তৃণমূল এই তিন দলেওই ওই কেন্দ্রে বেশ হেভিওয়েট প্রার্থী দিয়েছে। প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ অনুপম হাজরা ওই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী। কলকাতার প্রাক্তন মহানাগরিক বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য যাদবপুরের সিপিএম প্রার্থী। অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীকে ওই কেন্দ্রে প্রার্থী করেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা।

আরও পড়ুন- ঝাড়গ্রামে বিজেপি কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ, কাঠগড়ায় তৃণমূল

ভাঙড়ের সঙ্গে দাপুটে তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলামের নাম ওতোপ্রতোভাবে জড়িয়ে রয়েছে। গত এক দশকে বিভিন্ন সময়ে ওই এলাকার বহু হিংসায় জড়িয়েছে আরাবুলের নাম। হাটাগাছাড় এই বোমাবাজির ঘটনাতেও আরাবুল ইসলামের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে স্থানীয় বাসিন্দারা। ভোটের এক সপ্তাহ আগে থেকেই আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করে এলাকা দখল করতে চাইছে আরাবুল বাহিনী। এমনই অভিযোগ বাসিন্দাদের।