বর্ধমান: ভোট পরবর্তী হিংসা চলছেই। থামার কোনও লক্ষণ আপাতত দেখা যাচ্ছে না। এরই মাঝে এক বিজেপি নেতার বাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি করার অভিযোগ উঠল।

ঘটনাটি পুর্ব বর্ধমান জেলার রায়না এলাকার। রায়নার এক নম্বর পঞ্চায়েতের নাড়ী বেলবাগান এলাকায় এক বিজেপি নেতার বাড়িতে ব্যাপক বোমাবাজি করার অভিযোগকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়।

ওই জেলাতেই গলসী এলাকায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে এক তৃণমূল সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে। একই সঙ্গে ওই ঘটনায় জখম হয়েছেন আরও তিন জন। সেই ঘটনার ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে গলসি। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী অরুপ বিশ্বাস।

গলসীর রেশ না কাটতেই বোমাবাজির ঘটনা ঘটল রায়নায়। বাম জমানায় বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক হিংসার ঘটনার জেরে শিরোনামে উঠে এসেছেন রায়বার নাম। রাজ্যে পালা বদলের আট বছর পরেও ফের শিরোনামে রায়না। সৌজন্যে অবশ্যই সেই রাজনীতি।

শেষ পাওয়া খবর অনুসারে, রায়নার বোমাবাজির ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি। বিজেপির মন্ডল সভাপতি সঞ্জয় দাস জানিয়েছেন, সোমবার রাতে তাঁর বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। ব্যাপক বোমাবাজি করা হয়। তার মধ্যে মঙ্গলবার সকালে বাড়ির পাশ থেকে একটি তাজা বোমা উদ্ধার করেছে বর্ধমা্ন থানার পুলিশ।

এই ঘটনার পিছনে তৃণমূলের কর্মী সমর্থকেরা জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়ে ঘাস ফুল শিবিরের দাবি, এই ঘটনায় তাদের কেউ জড়িত নয় বলে দাবী করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। অন্যদিকে, এদিন সকালেই ঘটনাস্থলে যায় বর্ধমান থানার পুলিশ। এদিকে এই ঘটনায় এদিন দুপুরে বর্ধমান কালনা রুটের নাড়ী মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করেন বিজেপি সমর্থকরা। প্রায় ঘণ্টাখানেক রাস্তা অবরোধ করায় ব্যস্ততম রাস্তায় তীব্র যানজটেরও সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।