মুম্বই: ‘নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেউ প্রশ্ন তুলতেই পারেন, প্রশ্ন তুললেই তা দেশদ্রোহিতা হয়ে যায় না। শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদকারীদের স্বার্থরক্ষা করাও আদালতের দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে’। সংশোধিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে পুলিশি হস্তক্ষেপ খারিজ হয়ে যায়ওয়াকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা করা হয়৷ সেই মামালার প্রেক্ষিতেই এমনই মতামত জানায় বম্বে হাইকোর্ট৷

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে আন্দোলন-বিক্ষোভ চলছে৷ বিজেপি বিরোধী প্রায় সব রাজনৈতিক দল ছাড় একাধিক গণ সংগঠনও সিএএ ইস্যুতে পথে নেমে কেন্দ্র-বিরোধিতায় সামিল। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুলে পথে নেমেছে দেশের ছাত্র সমাজের একটি বড় অংশ। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের অবস্থান বিক্ষোভে পুলিশি হস্তক্ষেপ খারিজ হয়ে যায়ওয়াকে চ্যালেঞ্জ করে বম্বে হাইকোর্টে মামলা করা হয়।

সেই মামলার প্রেক্ষিতে আদালত জানায়, ‘আমাদের ভুললে চলবে না যে অহিংস আন্দোলনের মাধ্যমেই দেশ স্বাধীনতা অর্জন করে। এটা দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে এখনও এই দেশের মানুষকে তাঁদের নিজেদের সরকারের বিরুদ্ধেই প্রতিবাদ করতে হয়।’

সিএএ বিরোধী বিক্ষোভ ইস্যুতে বম্বে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ আরও জানায়, ‘শান্তিপূর্ণভাবে কোনও আইনের বিরোধিতা করলেই তাঁকে বিশ্বাসঘাতক বা দেশদ্রোহী বলা যায় না। নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে কেউ কোনও প্রশ্ন তুলতে পারবে না, এমন তো হতে পারে না। যাঁরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করছেন, তাঁদের স্বার্থরক্ষাও আদালতের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে’।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে ক্রমেই কেন্দ্র-বিরোধী সুর চড়া হচ্ছে। একের পর এক রাজ্যে সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাশ হচ্ছে। কেরল, রাজস্থান, পঞ্জাব, পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশ বিধানসভাতেও পাশ হয়েছে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব। একইসঙ্গে একাধিক রাজ্যই সিএএ-র বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছে। রাজ্যে-রাজ্যে বিধানসভাগুলিতে সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাশ করিয়ে আদতে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়ানোর কৌশল নিয়েছে বিরোধীরা।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে দেশের মধ্যে সর্বপ্রথম সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছে বামশাসিত কেরল। একইসঙ্গে এনআরসিরও বিরোধিতা করে রাজ্যে বন্ধ রাখা হয়েছে এনপিআর-এর কাজও। পশ্চিমবঙ্গেও কোনওমতেই সিএএ-এনআরসি কার্যকর করা হবে না বলে সাফ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা