kangana rawat
কঙ্গনা রাওয়াত

মুম্বই: ‘থালাইভি’ (Thalaivi)-র ট্রেলার লঞ্চের পর থেকেই কঙ্গনা পাচ্ছেন বলিউড তারকাদের থেকে প্রশংসা। অভিনেত্রী নিজেই টুইট করে একথা জানালেন। তিনি বলেছেন অক্ষয় কুমারের মত বড় বলিউডের তারকারা তাকে ‘সিক্রেট কল’ করে প্রশংসা জানাচ্ছেন। কিন্তু আলিয়া ভাট, দীপিকা পাড়ুকোনের সিনেমার মত তাঁকে সকলের সামনে প্রশংসা করা হচ্ছে না। এভাবে গোপনেই তাকে প্রশংসা জানানো হচ্ছে।

মঙ্গলবার কঙ্গনা টুইট করে লিখেছেন, অক্ষয় কুমারের মত বলি-তারকারা তাকে তার পরবর্তী ছবি ‘থালাইভি’-র জন্যে প্রশংসা করছেন। কিন্তু সেটা সকলের সম্মুখে নয়। ‘সিক্রেট কল’-এ জানানো হচ্ছে প্রশংসা। তিনি বলেছেন সকলের সামনে তার প্রশংসা করার সাহস নেই ওই সকল তারকাদের। তিনি মনে করেন, ‘যে কোন ইন্ডাস্ট্রির শিল্পকে সবসময় শুভেচ্ছা জানানো উচিত। ক্ষমতা বা রাজনীতিকে কখনই সিনেমার মাঝে টেনে আনা উচিত নয়। আর আমার রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি যাই হোক না কেন তার বিচারে আমায় যদি কেউ টার্গেট করে বা হ্যারাস করে তাহলে তাদের বলে দিই, জিত কিন্তু আমারই হবে।’ তিনি মনে করছেন, বলিউড তার এতটাই বিরোধী হয়ে উঠেছে যে কেউ যদি প্রকাশ্যে তার প্রশংসা করে তাহলে সেই ব্যক্তি বিপদে পড়তে পারে। তাই গোপনেই শুভেচ্ছা জানানো হচ্ছে তাঁকে।

অভিনেত্রীর হতে এখন পর পর তিনটি ছবি রয়েছে। থালাইভি, ধাকড়, তেজাস এই তিনটি ছবি নিয়ে ব্যস্ত কঙ্গনা। জয়ললিতার আত্মজীবনী নিয়ে তৈরি হয়েছে থালাইভি। এই ছবিতে দেখানো হয়েছে ছোট্ট জয়ললিতার অভিনেত্রী হাওয়া থেকে শুরু করে রাজনীতির মাটিতে পা রাখার জীবন যুদ্ধের কাহিনী। এটি পরিচালনা করেছেন এ এল বিজয়। রজনীশ ঘাই পরিচালিত কঙ্গনার পরবর্তী ছবি ধাকড়। এটি একটি অ্যাকশন এবং অ্যাডভেঞ্চার মুভি। ছবিতে তিনি একজন ইন্টারন্যাশনাল স্পাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন। অর্জুন রামপাল, দিব্যা দত্তকেও দেখা যাবে ছবিতে। এই বছর অক্টোবরে মুক্তি পাওয়ার কথা ধাকড়।

‘তেজাস’ এ ভারতীয় বিমাবাহিনীর একজন মহিলা পাইলটের ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাবে কঙ্গনাকে। ছবির পরিচালক সার্ভেশ মেয়ারা। ছবির শ্যুটিংয়ের জন্য অভিনেত্রী পাড়ি দিয়েছিলেন জয়সালমেরে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।