নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাকপুর: দক্ষিণেশ্বরের একটি গেস্ট হাউস থেকে শনিবার সকালে বৃদ্ধ দম্পতির

মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ মৃত বৃদ্ধ দম্পতির নাম সুব্রত নিয়োগি (৭৮), কাকন নিয়োগি (৭০)। জানা গিয়েছে, শনিবার ভোরবেলা দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দেবে বলে শুক্রবার রাতে ওই বৃদ্ধ দম্পতি দক্ষিণেশ্বরের অন্নপূর্ণা গেস্ট হাউসে এসেছিলেন।

কিন্তু শনিবার ভোর বেলায় পুজো দেওয়ার কথা থাকলেও সকাল পর্যন্ত তাদের ঘরের দরজা ভিতর দিয়ে বন্ধ থাকায় সন্দেহ হয় হোটেল কৃতিপক্ষের। তখন হোটেলের কর্মীরা ওই দম্পতিকে বাইরে থেকে ডাকাডাকি করে৷ ভিতর থেকে কেউ দরজা না খোলায় এবং সাড়াশব্দ না দেওয়ায় হোটেলের কর্মীদের সন্দেহ হয়। এরপরে তারা ফোন করে বেলঘরিয়া থানায় খবর দেয়। পুলিশ এসে ওই দুই দম্পতির মৃতদেহ উদ্ধার করে৷

মৃতদের বাড়ি কলকাতার চারু মার্কেট এলাকার রজেন্দ্র লাল গাঙ্গুলী লেনে বলে জানা গিয়েছে৷ পুলিশ এর অনুমান, আত্মহত্যা করেছে এই বৃদ্ধ দম্পতি। তবে কেন তারা আত্মহত্যা করল? বা কিভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে? তা স্পষ্ট নয়৷ গোটা ঘটনার তদন্ত করছে বেলঘড়িয়া থানার পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত ওই দম্পতির মৃত্যুর প্রকৃত কারন বলা সম্ভব নয়। এই ঘটনায় দক্ষিণেশ্বর এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ ওই গেস্ট হাউসের কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

দক্ষিণেশ্বরের ওই গেস্ট হাউসের মালিক নিকুঞ্জ বিহারি নন্দী বলেন, ‘এই দম্পতি শুক্রবার রাত সাড়ে আটটায় এসে ঘর ভাড়া করেন৷ ওনারা বলেন শনিবার ভোর বেলায় দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দেবেন৷ তাই আগের দিন এলেন। হোটেলের কর্মীরা যেন ভোর বেলায় তাদের ঘুম থেকে ডেকে দেন। সেইমত আজ সকালে আমাদের কর্মীরা ওই ঘরের বাইরে গিয়ে দীর্ঘক্ষন ডাকাডাকি করলেও ওই ঘর ভিতর থেকে বন্ধ ছিল৷ কেউ সাড়াশব্দও দেয়নি। তখন আমাদের সন্দেহ হয় এবং আমরা বেলঘরিয়া থানায় ফোন করে পুলিশ ডাকি৷ পুলিশ ঘরে ঢুকে দেখে বিছানায় উপর ওই দম্পতির দেহ পড়ে রয়েছে। পুলিশই মৃত দম্পতির পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়।’