ঢাকা: নির্বাচনের প্রক্কালে এমন অভযোগ আনলেন খোদ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তাঁর অভিযোগ, নির্বাচন কমিশন অনুমোদন ছাড়া এলসি খুলে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে ইভিএম মেশিন কিনেছে। সেকারণেই তিনি নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশে মন্তব্য করেন, ইভিএম মেশিনগুলো বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিন।

ইভিএম মেশিন কেনার জন্য বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের চার হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে, সেক্তহাও মনে করিয়ে দেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কয়েক জন সদস্য। আমীর খসরুর মতে, “কোনও গণতান্ত্রিক দেশে যেখানে সামান্য পরিমাণ জবাবদিহিতা আছে, সেখানে যারা মূল স্টেকহোল্ডার তাদের মতামত সম্পূর্ণ অগ্রাহ্য করে নির্বাচন কমিশন এ রকম কাজ করতে পারে না।”

তিনি আরও বলেন, “সবচেয়ে বড় কথা হল আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ যেখানে ২১ হাজার টাকা করে ইভিএম মেশিন কিনেছে, সেই ইভিএম মেশিন আমাদের নির্বাচন কমিশন কিনেছে দুই লাখ ৩০ হাজার টাকা দামে। অর্থাৎ প্রায় ১১ গুণ বেশি দাম দিয়ে। তাই আমি নির্বাচন কমিশনকে বলবো এসব মেশিন ক্রয় করা হয়ে গেছে, দুর্নীতির টাকাও পকেটে ঢুকে গেছে। এখন আল্লাহর ওয়াস্তে বাংলাদেশের জনগণকে বাঁচান। তাদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার স্বার্থে, এদেশের গণতন্ত্রের স্বার্থে, এদেশের মানুষের অধিকারের স্বার্থে দয়া করে মেশিনগুলোকে বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিন।”

৩০ জানুয়ারি সিটি করপোরেশন নির্বাচন। সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে উৎসবে মেতেছে ঢাকা শহর। গত বছর এই সময় অনুষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে কোন দল ক্ষমতায় আসবে সেদিকেই তাকিয়ে আছে ঢাকার মানুষ। কোন দল ক্ষমতায় আসবে এবং সাধারণ মানুষের জন্য কতটা কাজ করবে সেটাই এখন দেখার।

আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা উৎসবের আমেজ দেখছেন। তুলনায় অন্যরা কিছুটা চুপচাপ। গত বারের নির্বাচনে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ ওঠে শাসক দলের বিরুদ্ধে। ভোটের দিন স্কুলের দরজা বন্ধ করে ভোট কারানোর অভিযোগ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে। এমন অভিযোগ আনে বিরোধী দল বিএনপি।