তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: রক্ত সংগ্রহের ক্ষেত্রে অভিনব পথ দেখাতে চলেছে বাঁকুড়া৷ এবার চিকিৎসাধীন রোগী ও তাঁর আত্মীয়দের রক্ত সংগ্রহের ক্ষেত্রে হয়রানি কমতে চলেছে জেলায়।

রক্ত সংগ্রহের ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের মুশকিল আসানে এগিয়ে এল বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন। সোমবার জেলা শাসকের দফতরে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘বাঁকুড়া রক্ত বন্ধু’ নামে বিশেষ এক পোর্টাল ও অ্যাপের সূচনা করা হল।

আরও পড়ুন: সুখবর! ডিএ’র সঙ্গে বোনাসের ঘোষণা সরকারি কর্মীদের জন্যে

এবার থেকে সেই বিশেষ পোর্টাল ও অ্যাপ ব্যবহার করেই এক মুহূর্তে প্রয়োজনীয় রক্ত সংগ্রহ করা সম্ভব হবে। স্বেচ্ছায় রক্তদানে ইচ্ছুক ব্যক্তিরা এই পোর্টাল ও অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন। একই সঙ্গে গ্রহীতারাও এই অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করাতে পারবেন।

এরপর সেখান থেকে সহজেই রক্তদাতা ও গ্রহীতা পরস্পরের মধ্যে অতি সহজেই যোগাযোগ সম্ভব হবে। এত সবের পরেও জেলা প্রশাসন সতর্ক রয়েছে। এই বিশেষ পদ্ধতির মাধ্যমে কেউ বা কারা রক্ত নিয়ে ব্যবসা করতে চাইলে তার বিরুদ্ধে প্রশাসন কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: তিনশো’র নায়কের করুণ কাহিনিতে হতাশ প্রাক্তন নির্বাচক

জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, সারা বছর স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন এমন ব্যক্তিদের পাশাপাশি যে কেউ এই পোর্টাল ও অ্যাপে তাঁদের নাম নথিভুক্ত করতে পারবেন। লগ ইন পদ্ধতিতে এগোনোর পর বিশেষ সাংকেতিক ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির মোবাইলে পৌঁছে যাবে। সেই ওটিপি ‘বাঁকুড়া রক্ত বন্ধু’ নামে পোর্টাল বা অ্যাপে নির্দিষ্ট পদ্ধতি মেনে টাইপ করলেই সেই ব্যক্তির নাম নথিভুক্ত হয়ে যাবে।

একই ভাবে রক্তের গ্রহীতাকেও ওই একই পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। গ্রহীতার আবেদনের ভিত্তিতে রক্তদানে ইচ্ছুক ওই নির্দিষ্ট গ্রুপের রক্তদাতাদের কাছে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে তার মোবাইলে এসএমএস পৌঁছে যাবে। এক্ষেত্রে রক্ত গ্রহীতা ও রক্তদাতার এলাকা মোটামুটি যতটা সম্ভব কম দূরত্বের মধ্যেই রাখা হবে। তবে বিরল গ্রুপের রক্তের প্রয়োজন হলে এই নিয়মের কিছুটা ব্যতিক্রম হলেও হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: পুজোর আগেই সুখবর! ১৪ দিন ছুটি বাড়ল এই সমস্ত সরকারি কর্মীদের

এই পুরো বিষয়টি স্বাস্থ্য দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত অতিরিক্ত জেলাশাসক ও ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট পদমর্যাদার আধিকারিকরা দেখভাল করবেন। একই সঙ্গে গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘বাঁকুড়া রক্ত বন্ধু’ নামে অ্যাপটি যে কেউ চাইলে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

প্রতিবছর প্রচুর পরিমাণে রক্তের প্রয়োজন হয় এই জেলায়। এত দিন বিভিন্ন ধরনের বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, ক্লাব, রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি জেলা পুলিশের উদ্যোগে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হত৷ যার মাধ্যমে বিপুল এই রক্তের চাহিদা মেটানো সম্ভব হত। তবে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই প্রথম বিশেষ ধরনের অ্যাপ ও পোর্টাল চালু করে প্রয়োজনীয় রক্তের চাহিদা সহজেই মেটানো সম্ভব হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ”মেয়ে’ আর ‘মেয়ের মতো’ মধ্যে অনেকটাই তফাৎ রয়েছে’

অভিনব এই উদ্যোগকে রক্তদাতা সংগঠনগুলির পাশাপাশি জেলার সাধারণ মানুষও স্বাগত জানিয়েছেন। একই সঙ্গে রক্ত সরবরাহের সঙ্গে যুক্ত দালাল চক্রের বাড় বাড়ন্ত ও রক্তের কালোবাজারি অনেকটাই কমানো যাবে বলে অনেকে মনে করছেন তাঁরা৷

অনুষ্ঠান শেষে জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘‘মূলত বাঁকুড়া জেলার মানুষের কথা ভেবে বাঁকুড়া রক্ত বন্ধু পোর্টাল ও গুগল অ্যাপের সূচনা হল। এখানে নাম ও মোবাইল নম্বর নথিভুক্ত করে সহজেই রক্তদাতা ও গ্রহীতা পরস্পরের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারবেন।’’ এই কাজে কোনও মধ্যস্থতাকারী থাকবেন না বলেও জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস স্পষ্টতই জানিয়ে দেন৷

আরও পড়ুন: অ্যাক্সিস ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট রয়েছে? সমস্যায় এড়াতে অবশ্যই পড়ুন

এদিনের অনুষ্ঠানে জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস, পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও, বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডেপুটি সিএমওএইচ-২ বার্ণামান টুডু সহ জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা ও বিভিন্ন রক্তদাতা সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন: পরকীয়ায় অপরাধ নেই! স্বামীকে আটকাতে না পেরে আত্মঘাতী স্ত্রী