তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: শনিবার গোধূলী লগ্নে ছন্দার বিয়ে। পাত্র দুর্গাপুরের সবন। দিনের আলোতে একদিকে যখন বাড়ির সকলে গায়ে হলুদের আয়োজনে ব্যস্ত, কিম্বা বরযাত্রীদের আপ্যায়নের ব্যবস্থা করতে সকলে উঠে পড়ে লেগেছেন, ঠিক তখনই বিয়ের জন্য বাঁধা প্যাণ্ডেলেই রক্তদান শিবিরের তদারকিতে ব্যস্ত ছন্দা।

নিজের বিবাহ আসরে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করে এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন ছন্দা মণ্ডল। বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাটির প্রত্যন্ত গ্রাম কুঁকড়াঝোড়ের ছন্দার এই অভিনব উদ্যোগে পাশে দাঁড়িয়েছেন পরিবারের সকলের সঙ্গে আত্মীয় স্বজন এমনকি বিয়ের কাজে নিযুক্ত পুরোহিতও।

ছন্দার বন্ধু বান্ধব, পাড়া প্রতিবেশী থেকে বিয়ে বাড়িতে আসা আত্মীয় স্বজনরাও এই সুযোগ হাত ছাড়া করতে চাননি। একে একে সবাই শুয়ে পড়ছেন রক্তদানের জন্য নির্দিষ্ট বেডে। রক্তসংগ্রহে আসা বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্কের কর্মীরাও খুশি এই উদ্যোগে। প্রায় একশো জন রক্ত দিলেন এদিন৷

ভাইঝির অভিনব এই ভাবনায় খুশি কাকা কার্তিক মণ্ডল। তিনি বলেন, ইংরাজী সাহিত্যে অনার্সের ছাত্রী ছন্দা বরাবরই নিজেকে নানান সমাজসেবামূলক কাজে যুক্ত রেখেছে। বিয়ের অনুষ্ঠানে রক্তদান শিবিরের আয়োজনের কথা বললে আমরা না করতে পারিনি। মানুষের কল্যাণে যা শুভ তা আমাদের সকলের করা উচিৎ বলেও তিনি জানান।

বিয়ের সাজে রক্তদান শিবিরে তদারকির ফাঁকে ছন্দা মণ্ডল বলেন, আজ স্বপ্ন পূরণ হলো। এই কাজে বাবা, মা, কাকুর পাশাপাশি পাত্র ও তার পরিবার থেকে পূর্ণ সমর্থন পাওয়া গিয়েছে বলে তিনি জানান।