পানাজী: গোয়ায় সঙ্কটে পড়েছে বিজেপি৷ সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোয় বিজেপি সরকারের অপসারণের দাবি জানিয়ে কোমর বেঁধে ময়দানে নেমেছে রাহুল গান্ধীর দল৷ রাজ্যপালকে চিঠি লিখে কংগ্রেস সরকার গঠনের দাবি জানিয়েছে৷ বিধানসভার বিরোধী নেতা চিঠি লিখে জানান, রাজ্যে এখন কংগ্রেস একক বৃহত্তম দল৷ তাই রাজ্যপালের উচিত সরকার গঠনের জন্য কংগ্রেসকে ডাকা৷ লোকসভা ভোটের মুখে গোয়ার পরিস্থিতি চিন্তায় ফেলেছে গেরুয়া শিবিরকে৷ অবস্থা সামাল দিতে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব আরও একবার ভরসা রেখেছেন কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহনমন্ত্রী নীতিন গড়করির উপর৷

সূত্রের খবর, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নীতিন গড়করিকে তাড়াতাড়ি গোয়া চলে যেতে বলেছে৷ গত বিধানসভা নির্বাচনে উপকূলবর্তী এই রাজ্যের দায়িত্বে ছিলেন তিনি৷ তাই এবারও তাঁর উপর আস্থা রেখেছে বিজেপি নেতৃত্ব৷ যদিও দলের তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই নিয়ে কিছু জানানো হয়নি৷

গোয়ার পরিস্থিতি উদ্বেগে রেখেছে বিজেপিকে৷ প্রথমত তারা সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে৷ দ্বিতীয়ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্করের অসুস্থতা৷ প্যানক্রিয়াটিক ক্যানসারে ভুগছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ মাঝেমধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন৷ ফলে প্রশাসনিক কাজকর্ম ব্যাহত হচ্ছে৷ সূত্রের খবর, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও এবার মনোহর পারিক্করকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিতে চাইছে৷ তাই নতুন মুখ্যমন্ত্রী খোঁজা হচ্ছে৷ বর্তমান বিধায়কদের মধ্যে যোগ্য কাউকেই বাছাই করতে হবে বলে শীর্ষ নেতৃত্বকে জানিয়েছে রাজ্য বিজেপি৷

এদিকে গোয়ায় নতুন করে সরকার গঠনে মরিয়া হয়ে উঠেছে কংগ্রেস৷ অপরদিকে বিজেপি মরিয়া সরকার বাঁচাতে৷ ফলে দু’পক্ষের বিরুদ্ধে বিধায়ক কেনাবেচার অভিযোগ উঠতে শুরু করবে৷ এই পরিস্থিতিতে বিজেপি নেতাদের গোয়া না ছাড়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে৷ পাশাপাশি বিজেপিকে সমর্থনকারী আঞ্চলিক দলগুলির সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে গেরুয়া শিবির৷ তবে বিজেপির কাছে স্বস্তির খবর, আঞ্চলিকদলগুলি মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্করের সঙ্গে দেখা করে সমর্থনের কথা জানিয়েছেন৷