ব্যারাকপুর: বিজেপির সংকল্প যাত্রা থেকে তৃণমূলের কটাক্ষের জবাব দিলেন বীজপুরের বিজেপি বিধায়ক মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় । তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সংকল্প যাত্রাকে কটাক্ষ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূল কর্মীরা বিজেপির সংকল্প যাত্রা কর্মসূচিকে কটাক্ষ করে বলেছেন, বিজেপির হাতে কোন ইস্যু নেই তাই এই সংকল্প যাত্রা করছে ওরা । এই প্রসঙ্গে শুভ্রাংশু রায় বলেন, “যত দিন যাচ্ছে ততই বিজেপির সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক আরো নিবিড় হচ্ছে । দিনদিন বিজেপির জন সমর্থন বাড়ছে । এই সংকল্প যাত্রা দেখতে অসংখ্য মানুষ রাস্তার দুই পাশে ভিড় করেছে । বিজেপির সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক অটুট আছে, ওরা যাই বলুক মানুষের থেকে বুদ্ধিমান কেউ নেই । ভোট বাক্সে মানুষ ওদের সব প্রশ্নের এবং সমালোচনার উত্তর দিয়ে দেবে ।”

জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর সার্ধ শতবর্ষ উপলক্ষে বিজেপির পক্ষ থেকে সমাজ ও পরিবেশ সচেতনতার বার্তা দিতে এই সংকল্প যাত্রা কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে । উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বীজপুরের কাঁপা মোড় থেকে এই সংকল্প যাত্রা কর্মসূচির সূচনা করেন স্থানীয় বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় ।

আরও পড়ুন – শাহের সঙ্গে দেখা হয়েছে, রাজনীতি নিয়ে কোনও কথা হয়নি : সৌরভ

প্রথম দিনের সংকল্প যাত্রায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপস্থিত ছিলেন বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় সহ ব্যারাকপুর সাংগঠনিক জেলা বিজেপি নেতৃত্বরা সহ কয়েকশ বিজেপি কর্মী সমর্থক । মূলত মহাত্মা গান্ধীর জন্ম সার্ধ শতবর্ষ উপলক্ষে পরিবেশ রক্ষায় প্লাটিক বর্জন ও সবুজায়নের বার্তা নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে এই পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছিল । প্রথম দিনের সংকল্প পদযাত্রা কাঁপা মোড় থেকে শুরু হয়ে হালিশহর বাগমোড়ে গিয়ে শেষ হয় ।

বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, “আজকে থেকে আমাদের এই সংকল্প যাত্রা শুরু হয়েছে, আমরা মানুষের কাছে যাচ্ছি । মানুষকে বলছি স্বচ্ছ থাকুন, পরিষ্কার থাকুন, গাছ লাগান, প্রান বাঁচান ।” শুভ্রাংশু এদিন সাংবাদিকদের বলেন, “মানুষের সঙ্গে এখন বিজেপির সম্পর্ক অটুট রয়েছে এবং দিনের পর দিন বিজেপির জন সমর্থন আরো বাড়ছে, জন সম্পর্ক এখন আরো নিবিড় হয়েছে ।” তৃণমূল সংকল্প যাত্রাকে কটাক্ষ করা প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে শুভ্রাংশু রায় বলেন, ওরা অনেক কিছুই বলবে, অনেক কিছুই করবে, মানুষ জানে, মানুষ দেখছে, মানুষ শুনছে, মানুষের মতো বুদ্ধিমান আর কেউ নেই । মানুষ এর জবাব ভোটের বাক্সে দেবে ।”