নয়াদিল্লি: লোকসভা ভোটে বিরাট জয়৷ ৩০০-এর উপর আসনে জয়৷ এনডিএ জোটের আসন সংখ্যা সাড়ে তিনশো অতিক্রম করে গিয়েছে৷ দেশজুড়ে গেরুয়া সুনামি৷ কিন্তু কাঁটার মতো বিঁধছে তেলেঙ্গানা, তামিলনাড়ু, কেরালা৷ এইসব দক্ষিণী রাজ্যে সাফল্যের মুখ দেখতে পাননি বিজেপি প্রার্থীরা৷ তাই সংগঠন বিস্তারে দলের অন্যতম ভিত ডঃ শ্যামাপ্রসাদ রায়ের জন্মদিনটিকেই বেছে নিয়েছেন মোদী-শাহ-নাড্ডারা৷

ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিবস ৬ই জুলাই৷ ওই দিন থেকেই দলের সদস্যপদ সংগ্রহের কাজে নামছে গেরুয়া শিবিরের নেতারা৷ সারা ভারতজুড়ে চলবে সদস্যপদ বিস্তারের কাজ৷ প্রধানমন্ত্রী মোদী ব্যস্ত থাকবেন নিজের কেন্দ্র বারাণসীতে দলের ভিত আরও পোক্ত করার কাজে৷ মন্দিন শহর থেকে তিনি শুরু করবেন সদস্যপদ বৃদ্ধির কাজ৷ তাঁকে সহায়তার জন্য থাকবেন বিজেপির কার্যনির্বাহী সভাপতি জেপি নাড্ডা৷

আরও পড়ুন: উচ্চমাধ্যমিকের উত্তরপত্র দেখতে পারবে পরীক্ষার্থীরা

অন্যডিকে, পদ্ম শিবিরের চাণক্য ৬ই জুলাই থাকবেন তেলেঙ্গানাতে৷ এই রাজ্যে লোকসভা ও বিধানসভা ভোট হয়েছে একযোগে৷ কিন্তু চন্দ্রশেখর রাওয়ের টিআরএস-এর জনপ্রিয়তায় ভাগ বসাতে ব্যর্থ বিজেপি৷ মেলেনি সাফল্য৷ তাই কালক্ষেপ না করে দলের ভিত শক্ত করতে মাঠে নামছেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি নিজেই৷

বিজেপির সদস্যপদ কমিটির প্রধান তথা মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং বলেন, ‘‘অমিত শাহ প্রথমে সামসাবাদ সদস্য সংগ্রহ অভিযানে সামিল হবেন৷ পরে ওই শহরেই বৈঠক করবেন রাজ্যের বিজেপি কার্যকর্তাদের সঙ্গে৷ দিক নির্দেশ করবেন কাজের৷’’ সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচির জন্য প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন৷ দলের সব রাজ্যের সভাপতি ও জেলা কার্যকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক হয়ে গিয়েছে৷ বর্তমানে গ্রামস্তরে বৈঠক হচ্ছে৷ দাবি শিবরাজের৷

আরও পড়ুন: ন্যাজাটে সংঘর্ষে পেটে লাথি অন্তঃসত্ত্বাকে, হাসপাতালে দেখতে গেলেন নুসরত

বর্তমানে দেশের বৃহৎ দল বিজেপি৷ সদস্য সংখ্যা কোটির উপর৷ সেই সংখ্যা আরও বৃদ্ধি করাই যেনম লক্ষ্য, তেমনই নজরে অপেক্ষাকৃত দুর্বল যেসব রাজ্যে সেখানে মানুষের কাছে পৌছনো৷ লক্ষ্যপূরণে সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নামতে চলেছে বিজেপির ২ লক্ষেরও বেশি কোয়ার্ডিনেটর৷ তারাই পৌঁছে যাবেন বাড়িতে বাড়িতে, জনবহুল এলাকায়, স্টেশন, বাজার, বাস-রিক্সা স্যান্ডে৷ মানুষকে বোঝাবেন মোদী সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের সুবিধা৷ চেষ্টা করবেন সদস্যপদ বৃদ্ধির৷

বিজেপির পাখির চোখ বাংলা৷ আসন বেড়েছে চোখে পড়ার মতো৷ ২১শের বিধানসভায় দলের জয় দেখতে চাইছেন মোদী অমিত শাহরা৷ দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দাবি, ‘‘গত বছর আমরা ৪২ লক্ষ সদস্যকে তালিকাভুক্ত করেছিলাম৷ এবার লক্ষ্য এক কোটি সদস্যপদ সংগ্রহ৷’’ তাঁর কথায়, ‘‘২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে আমরা ৮৬ লাখ ভোট পেয়েছিলাম। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে আমাদের দল এই রাজ্যে মোট ২.৩০ কোটি ভোট পেয়েছে এবং এই ভোট দাতাদের অর্ধেককে অন্তত দলের সদস্য হিসাবে তালিকাভুক্ত করা উচিত।’’