নয়াদিল্লি : প্রজ্ঞার কথায় চরম অসন্তুষ্ট ভোপালে বিজেপির একমাত্র মহিলা মুসলিম নেত্রী। প্রজ্ঞার মন্তব্য চরমভাবে সাম্প্রদায়িকতার বীজ বপন করে এবং সেই সঙ্গেই তার বক্তব্য ঘোরতর আপত্তিজনক। তাই একই দলে থেকেও প্রচারে যেতে সরাসরি ‘না’ বলে দিলেন ভোপালে বিজেপির একমাত্র মহিলা মুসলিম নেত্রী ফাতিমা রসুল সিদ্দিকি।

বৃহস্পতিবার তিনি জানিয়েছেন, আমি মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানকে দেখে রাজনীতি করতে এসেছি। মধ্যপ্রদেশের সংখ্যালঘু মানুষদের তার প্রতি গভীর আনুগত্য রয়েছে এখনও। কিন্তু, এবছর বিজেপি এমন এক প্রার্থীকে দাড় করিয়েছে যার জেতার কোনও সম্ভবনাই নেই। আমি ইতিমধ্যেই আমার মতামত দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে পেশ করেছি, যে আমি ওনার হয়ে প্রচারে নামব না।

২০১৮ সালে মধ্যপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন সিদ্দিকি। সম্প্রতি বাবরি মসজিদ নিয়ে ভপালের বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের মন্তব্য বিতর্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তা আরও একবার প্রমাণ করল প্রচারে সিদ্দিকির না বলায়। প্রজ্ঞা বলেছেন, ” বাবরি মসজিদে চড়ে আমরাই তা গুড়িয়ে দিয়েছিলাম। “

তাছাড়া মুম্বই বিস্ফোরণ মামলায় সন্ত্রাস বিরোধী দলের প্রধান হেমন্ত কারকারে তার অভিশাপেই মারা গিয়েছে, এমন আপত্তিজনক মন্তব্যও জনগণের বিরাগভাজন করে তুলেছে প্রজ্ঞাকে। এই সমস্ত বিষয় উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞার প্রচারে যেতে সরাসরি না বলে দেন সিদ্দিকি।

লোকসভা নির্বাচনে মধ্যপ্রদেশের ভোপাল আসন থেকে বিজেপির হয়ে দাঁড়িয়েছেন সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর। এই কেন্দ্রে প্রজ্ঞার প্রতিদ্বন্দী কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা দিগ্বিজয় সিং। সিদ্দিকির মতে মধ্যপ্রদেশে প্রবীন বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের ভাবমূর্তিকেও নষ্ট করছেন প্রজ্ঞা। যার মধ্যপ্রদেশবাসী মুসলিমদের সঙ্গে মধুর সম্পর্ক ছিল।

সিদিক্কি কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেন কি না এই প্রসঙ্গে তাঁকে এদিন জিজ্ঞাসা করা হলে তার সাফ জবাব, ‘ না ‘। “আমার বিজেপি ছাড়ার কোন ইচ্ছা নেই কিংবা অন্য কোনও দলে যোগ দেবার কোনও ইচ্ছাও নেই।”

ডাক্তারির ছাত্রী সিদ্দিকি রাজনীতিতে তরুণ। মধ্যপ্রদেশেরই মন্ত্রী তথা প্রবীণ কংগ্রেস নেতা রসুল আহমেদ সিদ্দিকির মেয়ে ফাতিমা রসুল সিদ্দিকি। ২০১৮ তে বিজেপিতে যোগদানের মাধ্যমে পা রাখেন রাজনীতিতে। সে বছরই উত্তর ভোপাল বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়ান তিনি। তার সমর্থনে বেশ কিছু মুসলিম মহিলা থাকলেও কংগ্রেসের প্রার্থী আরিফ আঁকিলের কাছে তিনি হেরে যান।