নয়াদিল্লি: লোকসভায় চলছে অধিবেশন। আর অধিবেশন শুরু হতেই চালু শাসক-বিরোধী তরজা। একদিকে নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় সরব বিরোধীরা। অন্যদিকে, ছেড়ে কথা বলছে না শাসক দলও। এবার পশ্চিমবঙ্গকে পাকিস্তানের সঙ্গে তুলনা করে তোপ দাগলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার সংসদে সরস্বতী পূজা নিয়ে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন লকেট। বাংলার মানুষকে সরস্বতী পূজা করতে দেওয়া হয় না বলে আক্রমণ করেন তিনি। এই প্রসঙ্গেই পশ্চিমবঙ্গকে পাকিস্তানের সঙ্গে তুলনা করেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তোষণের রাজনীতি করছে বলেও মন্তব্য করেন লকেট।

লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে এমনই অবস্থা যে, সেখানে মানুষকে সরস্বতী পূজা করতে দেওয়া হয় না। ঠিক পাকিস্তানের মত পরিস্থিতি। সেখানেও হিন্দুদের পূজা করতে দেওয়া হয় না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তোষণের রাজনীতি করছেন।’

যদিও বিজেপির এমন অভিযোগ নতুন নয়। আগেও বাংলায় পূজা করতে দেওয়া হয় না বলে সরব হয়েছেন শীর্ষস্তরের বিজেপি নেতারা। অমিত শাহ সংসদেও এমন অভিযোগ তুলেছেন। যদিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই গেরুয়া শিবিরের এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন।

বাংলায় লোকসভা ভোটের প্রচারে এসে অমিত শাহ বলেছিলেন, ‘বাংলায় যদি সরস্বতী পূজা আর দুর্গা পূজা না হয়, তাহলে কি পাকিস্তানে গিয়ে করতে হবে? আমরা ক্ষমতায় এলে সাড়ম্বরে হবে দুর্গা পূজার বিসর্জন।’

অমিত শাহের এই মন্তব্যের ২৪ ঘণ্টা পরেই সভা থেকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছিলেন, ‘সরস্বতী পূজা হয় কি হয় না? দুর্গা পূজা হয় কি হয় না?’ মোদীর সেনাপতিকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে মমতা বলেন, ‘গুন্ডাবাজরা বলছে বাংলায় দুর্গাপুজো, সরস্বতী পুজো হয়না। প্রমাণ করে দেখান নাহলে রাজনীতি ছেড়ে দিন। উলটো হলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।’