আর্কাইভ

নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: দুপুরে বিজেপির লালবাজার অভিযান৷ অন্যদিকে সরকারি হাসপাতালগুলিতে চিকিৎসকদের কর্মবিরতি৷ বন্ধ আউটডোর৷ যার জেরে দফায় দফায় রাস্তা অবরোধে রোগীর পরিবারের লোকজন৷ এসএসকেএম থেকে কলকাতা মেডিক্যালের বাইরে৷ সর্বত্র একই ছবি৷ ফলে আজ আর কিছুক্ষণের মধ্যেই অবরুদ্ধ হতে চলেছে মধ্য কলকাতা৷

আরও পড়ুন: ‘আব কি বার’ কৃষক বন্ধু মোদীকে দেখার অপেক্ষায় দেশ

বাংলায় আইনশৃঙ্খলা অবনতির অভিযোগে আজ লালবাজার অভিযান করবে বিজেপি। বুধবার শহরের রাস্তায় মিছিলের ডাক দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। দুপুর ১২টায় ওয়েলিংটন থেকে শুরু হবে মিছিল৷ ভোটের অঙ্কে রাজ্যে উত্থান হয়েছে গেরুয়া শিবিরের৷ তারপর এদিনই প্রথম সংগঠিত আকারে মিছিল করবে তারা৷ শক্তির প্রদর্শন করবে পদ্ম দলের নেতৃত্ব৷

আর্কাইভ

বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ থেকে নির্বাচিত দলের ১৮ সাংসদই উপস্থিত থাকবেন এদিনের লালবাজার অভিযানে৷ সূত্রের খবর, প্রায় লক্ষাধিক কর্মী, সমর্থককে হাজির করা হবে এদিনের অভিযানে৷ মিছিল আসবে হাওড়া, শিয়ালদহ থেকে৷ ফলে এমনিতেই চাপ বাড়বে শহরের উপর৷ রাস্তায় থাকবে প্রায় সাড়ে তিন হাজার পুলিশ৷ অভিযানের সময় যান নিয়ন্ত্রণ করা হবে কলকাতা পুলিশের তরফে৷ গতি শ্লথ হবে শহরের ট্রাফিকের৷

আরও পড়ুন: ‘মিনি পাকিস্তান’ বাংলা থেকে বিহারীদের তাড়াচ্ছে রোহিঙ্গারা: JDU

এতো গেল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড৷ কিন্তু, গোদের উপ বিশফোঁড়া হিসাবে হাজির সরকারি হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতি৷ নিরাপত্তার অভাবে আন্দোলনে এনআরএসের জুনিয়র চিকিৎকরা৷ হাসপাতালের গেটে ঝুলছে তালা৷ সবকর্মীদের আন্দোলনে সামিল রাজ্যের অন্যসব সরকারি হাসপাতালের জুনিয়র ডাক্তাররাও৷ সাতটি চিকিৎসক সংগঠন এদিন হাসপাতালগুলিতে আউটডোর বন্ধের ডাক দিয়েছে৷

এতেই গোল বেঁধেছে৷ চিকিৎসা না পেয়ে অসহায় রোগী ও তাদের পরিবার৷ সহ্যের সীমা পারোলেই চিকিৎসার দাবি নিয়ে তারা হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তা অবরোধ করছেন৷ নাজেহাল পুলিশ৷ অবরোধের জেরে গত ২৪ ঘন্টায় মাঝেমধ্যেই থমকে যাচ্ছে ট্রাফিক৷ দুর্ভোগে আম আদমি৷

আরও পড়ুন: NRS কাণ্ডের সমাধানে মোদীর হস্তক্ষেপ চাইলেন অধীর

মেডিক্যালই হোক, এসএসকেএম বা এনআরএস মধ্য কলকাতায়৷ লালবাজার তিলোত্তমার প্রাণকেন্দ্রে৷ ফলে একদিকে রাজনৈতিক মিছিল, অন্যদিকে সামাজিক পরিস্থিতির চাপে কলকাতার অফিস পাড়ার যে নাভিশ্বাস ওঠার জোগাড়- তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না৷