স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রথম দু’ফায় পাহাড়ে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে পারেনি বিজেপি৷ চলছিল আলোচনা৷ অবশেষে প্রার্থী খুঁজে পেল গেরুয়া বাহিনী৷

দার্জিলিং লোকসভা আসন থেকে বিজেপি’র হয়ে লড়বেন রাজু সিং বিস্ত৷ রবিবার দার্জিলিংয়ের প্রার্থীর নাম জানান দলের সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়৷ জানা গিয়েছে বিজেপি প্রার্থীকে সমর্থন করবে বিমল গুরুং ও জিএনএলএফ৷

২০১৪ সালে দার্জিলিং কেন্দ্র থেকে জিতেছিলেন বিজেপির এসএস আলুওয়ালিয়া৷ তাঁকে সমর্থম করেছিল মোর্চা৷ কিন্তু গত দু’দফার প্রার্থী তালিকাতেই স্পষ্ট হয়ে যায় এবার আর ওই কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করা হবে না আলুওয়ালিয়াকে৷

এদিকে মোর্চার রাশ এখন বিনয় তামাংয়ের হাতে৷ তারা আগেই তৃণমূলকে সমর্থনের কথা ঘোষণা করেন৷ তাদেরই প্রার্থী পাহাড়ের প্রাক্তন বিধায়ক অমর সিং রাইকে রাজ্যের শাসক দল দাঁড় করিয়েছে জোড়াফুল চিহ্নে৷ ফলে জল্পনা তৈরি হয় বিজেপি কাকে প্রার্থী করবে দার্জিলিং থেকে৷

এদিন কৈলাশ বিজয়বার্গিয় জানান,বিদায়ী বিধায়ক এসএস আলুওয়ালিয়া দার্জিলিং থেকে প্রার্থী হতে চাননি৷ চিঠি দিনে সেকথা দলের সর্ববারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে জানিয়েছেন৷ ফলে আলোচনা চলছিল পাহাড়ের বিভিন্ন দল ও দলীয় নেতাদের সঙ্গে৷ ঠিক হয়েছে বিজেপি’র হয়ে লড়বেন রাজু সিং বিস্ত৷

 

এসএস আলুওয়ালিয়াকে বিজেপি রাজ্যের অন্য আসন থেকে প্রার্থী করতে পারে বলে সূত্রের খবর৷

দিন কয়েক আগেই, বিবৃতি দিয়ে বিমল গুরুং জানিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীকে কোনও মতেই তিনি মেনে নেবেন না৷ পাহাড়ের অন্যন্য দলের কাছেও অমর সিং রাইকে সমর্থন না করার আহ্ববান জানান তিনি৷ গোপন ডেরা থেকে সেই বার্তাতেই জানিয়েছিলেন, খুব দ্রুত ফের পাহাড়ে ফিরতে চলেছেন তিনি৷ জল্পনা শুরু হয়েছিল তাহলে কি মোর্চার পলাতক নেতা ভোটের ঘুঁটি সাজাচ্ছেন৷ বিজেপি বিমল অনুগামীকেই প্রার্থী করে গতবারের জয়ী আসন ধরে রাখতে চাইবে মোদী-শাহ জুটি৷

জানা গিয়েছে, বছর ৩২-এর বিজেপি প্রার্থী রাজু সিং বিস্ত আপাতত নয়াদিল্লিতে থাকেন৷ আদতে সে মণিপুরের বাসিন্দা৷ একটি বেসরকারী সংস্থায় ম্যানেজিং জেরির্টর পদে কর্মরত তিনি৷ মোর্চার বিমল গুরুংদের সঙ্গে তাঁর পরিচয় রয়েছে৷ সোমবারই রাজধানী থেকে রাজ্যে আসবেন তিনি৷ ওই দিন বা মঙ্গলবার দার্জিলিং কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়ার জন্য মনোনয়ন জমা দেবেন রাজু৷

নির্বাচন ঘিরে পাহাড়ে এখন রাজনীতির উত্তাপ৷ মোর্চারই প্রাক্তন বিধায়ককে পার্থী করে বাজিমাতের চেষ্টার তৃণমূল৷ বামেরা ভরসা রেখেছে কাদের পুরনো সৈনিকের উপরই৷ এবার বিমলপন্থী পাদু বিস্তকে প্রার্থী করে লড়াই জমিয়ে দিল পদ্ম শিবির৷ মনে করছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা৷