স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্যে গুন্ডামি করছে বিজেপি৷ তাঁরা পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন উস্কানির মাধ্যমে রাজ্যে গোলমাল পাকাতে চাইছে৷ এই অভিযোগে শনিবার কলকাতা সহ সারা রাজ্যে প্রতিবাদ মিছিল করল তৃণমূল৷ পাহাড়ে দলের রাজ্য সভাপতি আক্রান্ত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ অবস্থান দেখিয়েছে বিজেপি৷ তারই পাল্টা হিসেবে এদিন রাজপথে নামল শাসকদল৷ পোড়ানো হল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ-র কুশপুতুল৷

এদিন দুপুরে কলকাতার ধর্ণতলা, বেহালা, যাদপুর, হাজরা, গড়িয়া সহ একাধিক জায়গায় বিক্ষোভ মিছিল করে তৃণমূল৷ বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে জেলায় জেলায়ও৷ ধর্মতলার মিছিলে নেতৃত্ব ছিলেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, বেহালায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়, যাদবপুরে মণীশ গুপ্ত, হাজরায় দেবাশিস কুমার, ইন্দ্রনীল সেন, গড়িয়াহাটে সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও খিদিরপুরের মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন ফিরহাদ হাকিম৷ তাঁদের অভিযোগ, বিজেপি পরিকল্পিতভাবে রাজ্যে অশান্তি পাকাতে চাইছে৷ সেই লক্ষ্যেই ওরা উস্কানি ছড়াচ্ছে৷

তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘পাহাড় শান্তই ছিল। দিলীপ ঘোষ সেখানে গুন্ডাবাহিনী নিয়ে গিয়ে অশান্তির সৃষ্টি করে মিথ্যে অভিযোগ করছে৷ রাজ্যের মানুষ এই জিনিস বরদাস্ত করবেন না৷ তাই এই প্রতিবাদ মিছিল৷’’ প্রতিটি বিক্ষোভ মিছিলের শেষে অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদীর কুশপুতুল পোড়ানো হয়৷

তৃণমূল নেতৃত্বর দাবি, শান্ত বাংলাকে অশান্ত করতে চাইছে বিজেপি৷ ওরা বিভেদের রাজনীতি করছে৷ জিএসটি থেকে নোট বাতিলের সিদ্ধান্তেরও তীব্র প্রতিবাদ জানান নেতৃত্বরা৷ তাঁদের কথায়, আগামী লোকসভা ভোটে বিজেপি-র পরাজয় নিশ্চিত৷ তাই পরিকল্পিতভাবে গোলমালের রাজনীতি করছে ওরা৷ ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এরাজ্যের প্রধান বিরোধী দল যে বিজেপিই এদিনের প্রতিবাদ মিছিলের মাধ্যমে তা কার্যত স্বীকার করে নিল শাসকদল৷