হাওড়া: ভারত মাতার পুজো ঘিরে উত্তেজনার আশঙ্কার ছিলই৷ তা স্বত্বেও প্রশাসন অশান্তি ঠেকাতে পারল না৷ থানার সামনে ভারতমাতার ছবি নিয়ে পুজো করতে এসে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হলো বিজেপি কর্মী সমর্থকদের৷ যদিও প্রজাতন্ত্র দিবসে বিজেপির এই কর্মসূচি ঘিরে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল হাওড়া জেলা পুলিশের তরফে৷

রবিবার হাওড়ায় বিজেপির তরফ থেকে বিভিন্ন থানার সামনে ভারতমাতা পূজোর কর্মসূচি নেওয়া হয়৷ বিজেপি কর্মীরা আসার অনেক আগে থেকেই পুলিশ বিভিন্ন থানার সামনে ব্যারিকেড করে রাখে৷ যদিও বিজেপি কর্মীরা আসার পর পুলিশের সঙ্গে তাদের ধস্তাধস্তি হয়৷ পুলিশ বিজেপি কর্মীদের পুজো করতে বাধা দিলে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়৷

এই ঘটনায় পুলিশ বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী সমর্থককে আটক করে গাড়িতে তোলে৷ তখন সেখানে আরও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে৷ ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন সকালে হাওড়া, ব্যাঁটরা, গোলাবাড়ি থানা সহ বিভিন্ন থানার সামনে বিজেপির তরফ থেকে ভারতমাতা পূজোর কর্মসূচি নেওয়া হয়৷

বিজেপি যুব মোর্চার হাওড়া জেলা সদর সভাপতি ওমপ্রকাশ সিং জানান, আমরা এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি হাওড়ায় ভারতমাতার পুজোর আয়োজন করেছিলাম৷ ওই দিন পুলিশ আমাদের পুজো করতে বাধা দেয়৷ এর প্রতিবাদে আমাদের দলের তরফ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন আমরা হাওড়ার প্রতিটি থানার সামনে ভারতমাতার পুজো করব৷

যদিও হাওড়ার কোথাও ভারত মাতার পুজো করার অনুমতি দেয়নি পুলিশ প্রশাসন৷ তা স্বত্বেও বিজেপি নেতা-কর্মীরা ভারত মাতার পুজো করার চেষ্টা করে৷ ফলে রবিবার এই পুজো ঘিরে উত্তেজনা তৈরি হয়৷
বিজেপি নেতাদের অভিযোগ, পুলিশ প্রশাসনের তরফ থেকে ভারত মাতার পুজো না করার জন্যে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল৷ এমনকি প্রতিমা শিল্পীকেও মূর্তি না বানানোর পুলিশ হুমকি দেওয়া হয়েছিল৷

জানা গিয়েছে, গত ২৩ শে জানুয়ারি অর্থাৎ নেতাজি জন্মজয়ন্তিতে বড় করে এই ভারত মাতার পুজো করার কথা ছিল৷ কিন্তু পুলিশি বাধায় তা পিছিয়ে ২৬ জানুয়ারি করার সিদ্ধান্ত হয়৷ বিজেপির অভিযোগ, রাজ্যে তালিবানি শাসন চলছে৷ তৃণমূলের অঙ্গুলি হেলনে কাজ করছে পুলিশ৷ তাদের নির্দেশেই এসব হচ্ছে৷

যদিও তৃণমূলের পালটা অভিযোগ, থানার সামনে ভারত মাতার পুজো করে অশান্তিতে উস্কানি দিতে চাইছে বিজেপি৷ বাংলায় এমন সংস্কৃতি নেই৷ ইচ্ছাকৃত ভাবে দিল্লির নির্দেশে এহেন কাজ বিজেপি করছে বলে অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের৷