লখনউ: সাত দফার নির্বাচনে যত ভোট পর্ব এগিয়েছে, ততই বেড়েছে সন্ত্রাস। দেশ জুড়ে ছবিটা এই রকমই। রবিবার শেষ দফার নির্বাচনে সেই উত্তাপ যেন আরও এক কাঠি এগিয়ে রইল। দলিত ভোটারদের আঙুলে জোর করে কালি লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল বিজেপির কর্মীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থল উত্তরপ্রদশের চান্দউলি।

গ্রামবাসীরা তো বটেই, সেই একই অভিযোগ করল সমাজবাদী পার্টি।

উত্তরপ্রদশের চান্দোলির তারা জীবনপুর গ্রামের বাসিন্দারা রবিবার অভিযোগ জানান, তাদের আঙুলে জোর করে কালি লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। লাগিয়ে দিয়েছে বিজেপি। তাঁরা এও অভিযোগ করেছেন, শনিবার রাতে তাদের গ্রামেরই ৩ জন ৫০০ টাকা করে গুঁজে দেয় তাদের হাতে। নিজেদের বিজেপির সমর্থক বলে পরিচয় দিয়ে তারা বলে তাদের ভোট হয়ে গিয়েছে। এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এক গ্রামবাসী বলেন, “ওঁরা বিজেপি কর্মী। আমাদের বিজেপিকে ভোট দিতে বলে। বলে আপনারা আর ভোট দিতে পারবেন না। আর কাউকে এই কথা বলবেনও না।”

ঘটনায় চান্দোলির এসডিএম কুমার হর্ষ বলেন, কিছু ভোটার তাদের অভিযোগ নিয়ে থানায় এসেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জানিয়েছেন, গ্রামবাসীদের আঙুলে কালি লেগে থাকলেও তাঁরা ভোট দিতে পারবেন। কারণ ভোট যখন শুরু হয় নি তখনই তাদের আঙুলে কালির ছাপ পাওয়া যায়।

অন্যদিকে, এই ঘটনায় সুর চড়িয়েছে সমাজবাদী পার্টিও। তাঁরা জানিয়েছে, বলপূর্বক দলিত ভোটারদের আঙুলে কালি লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারাও নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়েছে এ বিষয়ে। সমাজবাদীর মুখপাত্র মনোজ ধুপচান্দি টুইট করে বলেছেন, চান্দউলির কাছে দলিতদের ভোট দিতে নিষেধ করা হয়েছে। তিনি নির্বাচন কমিশনের কাছে আর্জি জানিয়েছেন, যাতে প্রত্যেকেই গনতন্ত্রে নিজেদের অধিকার কায়েম করতে পারে।