পশ্চিম মেদিনীপুর: এক বিজেপি কর্মীকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনে। এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারের পরেই তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে সরব হন বিজেপি কর্মীরা। অন্যদিকে এই অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

জানা গিয়েছে, বেলদা থানার অন্তর্গত জাঙ্কাপুরে একটি গাছ থেকে উদ্ধার হয় সক্রিয় বিজেপি কর্মী বর্ষা হাঁসদার দেহ। এরপরেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। জেলা বিজেপি সভাপতি এদিন বলেন, ‘‘বৃহস্পতিবার সন্তোষপুর এলাকায় বিজেপি কর্মীদের একটা পিকনিক ছিল। পিকনিকের পরে রাতে আর বর্ষা হাঁসদা বাড়ি ফেরেননি। আজ সকালে তাঁর ঝুলন্ত দেহ মিলল।’’

তিনি সরাসরি অভিযোগ করেন, রাতের অন্ধকারে তৃণমূলের কর্মীরা খুন করেছে বিজেপি কর্মীকে। যদিও অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছে, আত্মহত্যা করেছে ওই ব্যক্তি। পাশাপাশি মৃত ব্যক্তি বিজেপি কর্মী নয় বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

বর্ষা হাঁসদার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের পরেই দাঁতনে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিজেপি কর্মীরা। রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে দীর্ঘক্ষণ অবরোধ করা হয় স্থানীয় বিজেপির তরফে। তবে শুধুমাত্র বিজেপি নয়, জনজাতি সমাজের সংগঠনও প্রতিবাদে শামিল হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, বারবার তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষের খবর এসেছে দাঁতন থেকে। বিশেষ করে লোকসভা ভোটের পর থেকে বারবার অশান্ত হয়েছে দাঁতন। এমনকি এই ঘটনার দিন তিনেক আগেও দাঁতনে বিজেপি তৃণমূল সংঘর্ষ বেঁধেছিল বলে স্থানীয় সূত্রে খবর।