স্টাফ রিপোর্টার, পূর্ব মেদিনীপুর: লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি এক ধাক্কায় ১৮টি আসন লাভ করার পর থেকেই তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত পরিস্থিতি৷ বাংলার অন্যান্য জেলার পাশাপাশি পূর্বমেদিনীপুর জেলায় বিজেপির ভোট বৃদ্ধি হয়েছে। জেলার কাঁথি, পাঁশকুড়া, এগরার পাশাপাশি পটাশপুরেও বিজেপির কর্মী সমর্থক বৃদ্ধি পেয়েছে।

ফের একবার তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে মৃত্য়ু হল বিজেপি কর্মীর৷ এই মৃত্য়ু ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরে। পটাশপুর থানার ধকড়াবাঁকা গ্রামের বাসিন্দা বাসুদেব মাজীর মৃত্য়ু হয় বুধবার রাতে৷ সক্রিয় এই বিজেপি কর্মী এলাকার তৃণমূল নেতা বিশ্বজিৎ জানার হাতে আক্রান্ত হন বলে অভিযোগ ওঠে৷ তারপর থেকে অসুস্থ ছিলেন তিনি।

 

 

প্রথমে পটাশপুর ব্লক হাসপাতালে ও পরে তমলুক জেলা হাসপাতালে কিছুদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। এরপর বাড়িতেই ছিলেন। বুধবার রাতে নিজের বাড়িতেই তাঁর মৃত্যু হয়। দলীয় কর্মীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই তাঁর বাড়িতে জড়ো হন এলাকার বিজেপি কর্মীরা। বাসুদেব মাজীর মৃতদেহ নিয়ে তারা হাজির হয় মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল কর্মী বিশ্বজিৎ জানার বাড়ির সামনে।

ঘটনায় দোষীদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ দেখান উপস্থিত বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। সূত্রের খবর পলাতক অভিযুক্ত বিশ্বজিৎ জানা সহ এলাকার সক্রিয় তৃণমূল কর্মীরা। প্রয়োজনে বিশ্বজিতের বাড়ির সামনেই দলীয় কর্মী বাসুদেব মাজীর মৃতদেহ সৎকার করা হবে বলে জানান এলাকার বিজেপি কর্মীরা। তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ অস্বীকার করে জানানো হয় ব্যক্তিগত কারনে এই ঘটনা। এর সাথে দলের কোনও সম্পর্ক নেই। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।।