স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ভাঙবেন তবু মচকাবেন না৷ এরকম একটা মনোভাব নিয়ে হালিশহর পুরসভার দখলদারি ইস্যুতে লড়ে যাচ্ছে বিজেপি৷ বীজপুর বিধানসভার অন্তর্গত হালিশহর পুরসভার অধিকাংশ কাউন্সিলর বিজেপি ছেড়ে ফের তৃণমূলে ফিরে গেছেন। যার ফলে হালিশহর পুরসভা তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে চলে গেল বলা যায়। তবে হালিশহর পুর বোর্ডের দখল বিজেপির হাতেই থাকবে, আত্মবিশ্বাসের সুরে জানিয়ে দিলেন মুকুল পুত্র তথা বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়।

তিনি বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের পুর প্রধানের বিরুদ্ধে বিজেপি কাউন্সিলররা শীঘ্রই অনাস্থা প্রস্তাব আনবেন। তার বক্তব্য, এখনো তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন তৃণমূলের বেশিরভাগ কাউন্সিলরই। তাই ভোটাভুটি হলে হালিশহর পুরসভা বিজেপির দখলেই চলে আসবে, জানিয়ে দিলেন শুভ্রাংশু রায়।

শুভ্রাংশুর দাবি, সাংসদরা দিল্লী থেকে ফিরলেই হালিশহর পুরসভা নিয়ে দলের অন্দরে বৈঠক হবে এবং আগামীদিনের রূপরেখা তৈরী হবে। তবে হালিশহর পুরসভা তৃণমূল ধরে রাখতে পারবে না বলে এদিন সাফ জানিয়ে দেন শুভ্রাংশু রায়।

আরও পড়ুন : খাগড়াগড় বিস্ফোরণ: ধৃত হবিবুর জানিয়েছে রাজ্যে একাধিক ধর্মীয় স্থান টার্গেট

মঙ্গলবার কলকাতায় গিয়ে হালিশহর পুরসভার ৯ জন কাউন্সিলর বিজেপি ছেড়ে ফের তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন৷ পুর ও নগরউন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে দেখা করে ওই ৯ জন কাউন্সিলর তৃণমূল কংগ্রেসেই ফের যোগ দেন৷ হালিশহর পুরসভার পুরপ্রধান অংশুমান রায়ের নেতৃত্বে ওই কাউন্সিলররা বিজেপি দলের মোহ ভঙ্গ করে তৃণমূলে ফিরে এলেন বলে জানাচ্ছে দলীয় নেতৃত্ব৷

এই পুরসভার ৩ জন কাউন্সিলর তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গেই ছিলেন । ফলে হালিশহর পুরসভায় বর্তমানে তৃণমূলের কাউন্সিলরদের সংখ্যা দাঁড়াল ১২ জন। মোট ২৩ টি আসন রয়েছে হালিশহর পুরসভায়। এই ২৩ টি আসনের মধ্যে একজন নির্দল কাউন্সিলর রয়েছে। বাকি ২২ টি আসনের মধ্যে অধিকাংশ কাউন্সিলররাই বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা তলে চলে আসায় হালিশহর পুর বোর্ডের ক্ষমতা তৃণমূল কংগ্রেসের হাতেই থাকল।

আরও পড়ুন : ১৯ পুরসভায় ভোট কবে, কমিশনে বিজেপি

হালিশহর পুরসভার বর্তমান তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলরদের নাম হল কানুলাল সরকার (১নম্বর ওয়ার্ড), ঝুমুর গুপ্তা (২নম্বর ওয়ার্ড), বাসুদেব সাহা (৭ নম্বর ওয়ার্ড), প্রণব লোহ (১০ নম্বর ওয়ার্ড), কল্যাণী বিশ্বাস (১১ নম্বর ওয়ার্ড), জীবন কৃষ্ণ আচার্য (১৪ নম্বর ওয়ার্ড), অংশুমান রায় (১৫ নম্বর ওয়ার্ড), কল্পনা বিশ্বাস (১৬ নম্বর ওয়ার্ড), পারুল সাঁধুখা (২০ নম্বর ওয়ার্ড), জিয়াউল হক (২১ নম্বর ওয়ার্ড) এবং রাজু সাহানি (২২ নম্বর ওয়ার্ড)।

হালিশহর পুরসভা তৃণমূল কংগ্রেসের দখলেই ছিল। তবে বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংয়ের জয়ের পর বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের বেশ কয়েকটা পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলররা বিজেপিতে যোগদান করেন। ফলে রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরী হয় পুরসভাগুলিতে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।