নয়াদিল্লি: এত দিন কেন্দ্রে অ-বিজেপি অ-কংগ্রেসী শক্তির সরকার গঠনের পক্ষে সওয়াল করেছিলেন৷ তবে ভোটের পর সেই গোঁ ভেঙেছেন নবীন পট্টনায়েক৷ ওডিশ্যার স্বার্থ দেখলেই মিলবে বিজেডির সমর্থন৷ ঘোষণা করেছেন বিজেডি প্রধান৷ যা বিজেপির পক্ষে থাকার ইঙ্গিত বলেই মনে করা হচ্ছে৷ এদিকে বিজেডি থেকে পদ্ম শিবিরের নাম লেখানো জয় পান্ডার দাবি, ‘বিজেপি উদারমনস্ক৷ কেউ এনডিএকে সমর্থন করতেই পারে৷’

মোদী পট্টনায়েক জোট হলে কী তবে জয় পান্ডা কোণঠাসা হয়ে পড়বেন? সতর্ক উত্তর একটা নবীন ঘনিষ্ট জয়ের দাবি, ‘‘বিজেপি এককভাবেই ম্যাজিক ফিগার টপকে যাবে৷ এনডিএ পাবে ৩০০-র বেশি আসন৷ ফলে আগ বাড়িয়ে প্রয়োজন সমর্থনের প্রয়োজন হবে না৷’’

আরও পড়ুন: ৩ লক্ষ ভোটের ব্যবধানে না জিতলে বুঝব নির্বাচন অবাধ হয়নি: আজম খান

লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গেই ওডিশ্যায় হয়েছে বিধানসভা ভোট৷ বুথ ফেরত সমীক্ষায় প্রকাশ রাজ্যে শঙ্খ ধ্বনি বাজলেও লোকসভায় ভালো ফল করবে বিজেপি৷ টাইমস নাও-ভিএমআর সমীক্ষা বলছে ২১ আসনের লোকসভায় বিজেপি পেতে পারে ১২টি আসন৷ বিজেডি ৮ ও কংগ্রেসের ঝুলিতে যেতে পারে ১টি আসন৷

বিধানসভায় আসন কমলেও নবীন পট্টনায়েকের বিজেডি পাবে ৮৫-৯৫ আসন৷ গেরুয়া দল পেতে পারে ২৫ থেকে ৩৪৷ আসন৷ হাত শিবিরের ঝুলিতে যাবে ১২-১৫ আসন৷

বিধানসভা ভোটের ফল সমীক্ষার উলটো হলে কে হবে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী? জয়ের দাবি, ‘‘দল আমাকে যে দায়িত্ব দেবে বআমি তা মেনে চলব৷ বিজেপিতে প্রতিভার অভাব নেই৷ এই দলে সবাই সবার পরিপূরক৷’’

আরও পড়ুন: গণনা সমস্যার সমাধানে ইভিএম কন্ট্রোল রুম খুলল কমিশন

মনোমালিন্যের কারণে বিজেডি গত বছরই বিজেডি থেকে পদত্যাগ করেন জয় পান্ডা। দলত্যাগের পর সাংসদ পদও ছেড়ে দেন। বিজেপিতে যোগ দিয়ে জয়ের প্রতিক্রিয়া ছিল, ‘‘মানুষের কাজ করতেই দল বদল৷’’

মুখে বললেও আসলে লোকসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে বিজু জনতা দের প্রাক্তন সাংসদ বৈজন্ত ‘জয়’ পান্ডা যোগহ দেন বিজেপিতে৷ কেন্দ্রপাড়া থেকে প্রার্থীও হন তিনি৷