বারাকপুর: বুধবার অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো। বুধবার বাংলায় লকডাউন প্রত্যাহারের দাবি একাধিকবার জানানো হয়েছে বিজেপির তরফে। তবে রাজ্য সরকার গেরুয়া শিবিরের সেই দাবিতে আমল দেয়নি। তবে সরকার লকডাউন জারি রাখলেও তাতে তাঁদের কর্মসূচির বদল হবে না বলে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বুধবার বাংলায় লকডাউন চললেও অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষে এরাজ্যেও নিজেদের মতো করে কর্মসূচি পালন করবে বিজেপি। মঙ্গলবার পলতার ‘চা-চক্র’ কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে এমনই জানালেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

রাজ্য সরকারকে কার্যত চ্যালেঞ্জ করে মেদিনীপুরে বিজেপি সাংসদ বলেন, ‘ব্রিটিশ, মোঘল আমলেও রাম নবমী পালন করেছি। এবার লকডাউনেও তাই করব।’

দেশের অন্য রাজ্যগুলির পাশাপাশি বাংলাতেও উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে করোনা। প্রতিদিন আড়াই হাজারেরও বেশি মানুষ নতুন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু।

এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রুখতে সপ্তাহে দু’দিন গোটা রাজ্য লকডাউন জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগস্টের কোন কোন দিন রাজ্যে লকডাউন থাকবে, আগেই তা ঘোষণা করা হয়েছে।

সেই তালিকা অনুয়ায়ী বুধবার ৫ অগাস্ট রাজ্যে বলকডাউন থাকছে। তবে ৫ অগাস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর অনুষ্ঠান। সেই কারণেই বাংলাতেও এই দিনটি বিশেষভাবে পালন করতে চায় বিজেপি।

লকডাউনের দিন পরিবর্তনের আবেদন করেছিল বিজেপি। তবে রাজ্য প্রশাসনের তরফে বিষয়টিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। সোমবার লকডাউনের কয়েকটি দিন পরিবর্তন করা হলেও ৫ আগস্ট গোটা রাজ্যেই সম্পূর্ণ লকডাউন জারি রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার আবারও এপ্রসঙ্গে ক্ষোভ উগরে দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘সব কিছুতেই রাজনীতি শাসকদলের। পরিকল্পনা করে হিন্দু সমাজকে রাম মন্দির প্রতিষ্ঠার দিন উদযাপন করতে দেওয়া হচ্ছে না।’

একইসঙ্গে রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা নিয়েও কটাক্ষ ছুড়ে দিয়েছেন রাজ্য বিজেপির এই শীর্ষ নেতা। ‘দিশাহীন, উদ্দেশ্যহীন লকডাউন বাংলায়।’ রাজ্য সরকারকে দুষে এমনই মন্তব্য দিলীপ ঘোষের। বুধবার রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর দিনটি এরাজ্যেও উদজাপন করা হবে বলে জানান দিলীপ ঘোষ। রাজ্যকে তোপ দেগে দিলীপ বলেন, ‘পরিস্থিতি বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও