নয়াদিল্লি: বলিউড স্টার সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালতের সিদ্ধান্তকে আহ্বান জানিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। শুধু তাই নয় মহারাষ্ট্র সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি।

বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেছেন, “মহারাষ্ট্র সরকারের পক্ষপাতদুষ্ট আচরণকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দিয়েছে শীর্ষ আদালতের রায়”।

নিজের ট্যুইটারে হ্যণ্ডেলে সম্বিত পাত্র লিখেছেন, “সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিবার, নিউজ চ্যানেল, সাংবাদিক, কেন্দ্রীয় সরকার ও আইনজীবীদের অভিনন্দন। সত্যিটা প্রকাশ পাবেই”।

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলার তদন্তে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে সাহায্য করবে মহারাষ্ট্র। এই মামলায় গুরুতর অভিযোগের মুখোমুখি সুশান্তের বান্ধবী এবং অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। তাঁর বিরুদ্ধে পাটনায় যে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল তা মুম্বইয়ে স্থানান্তরিত করার জন্য আবেদন করেছিলেন তিনি।

সুশান্ত মামলায় ১১ আগস্ট শুনানি শেষ হয় সুপ্রিম কোর্টে। এরপর শীর্ষ আদালতের পক্ষ থেকে বিচারপতি হৃষিকেশ রায় নির্দেশ দেন, সব পক্ষকে ১৩ অগাস্টের মধ্যে তাদের যুক্তি নিয়ে সংক্ষিপ্ত লিখিত নোট জমা দিতে। সমস্ত পক্ষ ১৩ অগাস্ট তাদের যুক্তি সুপ্রিম কোর্টের কাছে পেশ করে। আদালত আজ, বুধবার, সেই রায় দেয়। সূত্রের খবর সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের পরে সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে তদন্তকারী দল এখন মুম্বইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

প্রসঙ্গত, ১৪ জুন বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের দেহ। মুম্বই পুলিশ জানায় তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন এবং বহু দিন ধরে অবসাদে ভুগছিলেন। ঘটনার প্রায় দেড় মাস পরে সুশান্তের বাবা কেকে সিং বিহার পুলিশের কাছে রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬, ৩৪১, ৩৪২, ৩৮০, ৪০৬ ও ৪২০ ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর করেন সুশান্তের বাবা। এর মধ্য রয়েছে আত্মহত্যার প্ররোচনা, প্ররোচনা, টাকার নয়ছয়-সহ আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ।

বিহার পুলিশের কাছে রেজিস্টার হওয়া এফআইআরটি তুলে দেওয়া হয় সিবিআই এর হাতে। কিন্তু তার পরে অভিযুক্ত তথা সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী সুপ্রিম কোর্টের কাছে এই তদন্তটি বিহার পুলিশের থেকে মুম্বই পুলিশের কাছে স্থানান্তরের দাবিতে পিটিশন করেন। সেই পিটিশনের রায় আজ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

প্রসঙ্গত, সুশান্তের পরিবারের পাশাপাশি অঙ্কিতা লোখান্ডে, কৃতী স্যানন, বরুণ ধাওয়ান, মৌনী রায় সহ আরও অনেকে সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হয়েছিলেন। এছাড়া সুশান্তের মৃত্যুর পরে মুম্বই পুলিশ জানিয়ে দেয় তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন। অবসাদে ভুগছিলেন। কিন্তু সুশান্তের অনুরাগীরা এই দাবি মানতে নারাজ হন। তাঁরা প্রথম থেকেই সুশান্তের সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। অবশেষে শীর্ষ আদালতের এই ঘোষণায় তাঁরাও খুশি।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।