শ্রীনগর: দিন কয়েক আগেই পাকিস্তানের সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বাণিজ্যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নয়াদিল্লি৷ তার পরেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি৷ তাঁর মতে কাশ্মীরকে নির্বাচনী হাতিয়ার বানিয়েছে বিজেপি৷ ভোটে ফায়দা তুলতে কাশ্মীরকে ব্যবহার করছে তাঁরা৷

ট্যুইট করে মুফতির সমালোচনা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুখে যতই কাশ্মীরের উন্নয়নের কথা বলুন, আসলে কাশ্মীরের সহানুভুতি পাওয়ার জন্যই তাঁর এত জনসভা, এত আশ্বাসবাণী৷ কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বলেন কাশ্মীরে ক্ষমতায় ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে বিজেপি৷ মোদী সরকারের আমলে সবথেকে বেশি পরিস্থিতি খারাপ হয়েছে৷ দুদেশের সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছে৷

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক ইস্যুতে মোদী সরকারকে তুলোধনা করা ছাড়াও এদিন মুফতি সমালোচনা করেন সাধ্বী প্রজ্ঞার মন্তব্যের৷ তাঁর মত বিজেপি এর পরেও সাধ্বী প্রজ্ঞাকে নির্বাচনে দাঁড় করিয়েছে৷ কোনও পদক্ষেপ তাঁর ওপর নেওয়া হবে না কেন? প্রশ্ন তুলেছেন মেহবুবা৷ এইভাবে বিজেপি নিজের দেশদ্রোহী চেহারাটা দেখিয়ে দিচ্ছে বলে মত তাঁর৷

এর আগে, জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জানান, লোকসভা ভোট যতদিন চলবে ততদিন ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা থাকবেই৷ ভোট মিটলে সেই উত্তেজনা কমবে৷ মেহবুবার বির্তকিত মন্তব্যের তালিকায় এটি নয়া সংযোজন৷

উপত্যকায় পিডিপি-বিজেপি জোট সরকার ভেঙে যাওয়ার পর থেকেই কেন্দ্রীয় সরকারের ও বিজেপির অন্যতম কট্টর সমালোচক হয়ে উঠেছেন মেহবুবা মুফতি৷ সেই সুর বজায় রেখেই তিনি লোকসভা ভোটের সঙ্গে নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়ে চলা দুই দেশের সম্পর্কের মূল্যায়ন করেন৷

মেহবুবা বলেন, সীমান্তে গোলাগুলি চলতেই থাকবে যতদিন না পর্যন্ত লোকসভা ভোট শেষ হবে৷ জম্মু কাশ্মীরের সীমান্ত এলাকায় ও অন্যান্য জায়গায় বেশি করে বাহুবলী রাজনীতি দেখতে পাওয়া যাবে৷

এরপরই বালাকোট নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে রাজনীতি করার অভিযোগ তোলেন পিডিপি নেত্রী৷ জানান, রাজনৈতিক সুবিধা পেতে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক নিয়ে বিজেপি নেতারা তাদের স্বার্থে প্রচার করছে৷