ফাইল ছবি। ঘটনার সঙ্গে কোনও যোগ নেই।

কলকাতা: দিল্লির ভোটে দলের ভরাডুবির কারণ খুঁজে পেয়েছে বঙ্গ বিজেপি। আর তাই এরাজ্যে আর সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি হতে দিতে চান না দিলীপ-মুকুলরা। বুথ কমিটি নড়বড়ে থাকায় দিল্লিতে ভোটের এই ফল বলে মনে করছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। ভোটের দিন অমিত শাহের তৈরি বিশেষ বুথ কমিটির সদস্যদের দেখা মেলেনি বুথ চত্বরে। সেই কারণেই দলের কর্মীদের মধ্যেও গা ছাড়া ভাব দেখা দেয়। এবার তাই এরাজ্যের ভোটের আগে বুথ কমিটি গুলিকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিতে তৎপরতা নিচ্ছে বিজেপির বঙ্গ ব্রিগেড।

শুক্রবার কলকাতায় রাজ্য বিজেপির সাংগঠনিক বৈঠক হয়। দিল্লির ভোটের ফল নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করেন দলের রাজ্য নেতারা। সেই আলোচনাতেই বুথ কমিটির ব্যর্থতার বিষয়টি উঠে আসে। দিল্লিতে ভোটের আগে দফায় দফায় বুথ কমিটিগুলির সঙ্গে বৈঠক করেন বিজেপি নেতা অমিত শাহ। ভোট পরিচালনা প্রসঙ্গে একাধিক টিপসও দলের নেতা-কর্মীদের দেন শাহ। কিন্তু ভোটের দিনেই বুথ চত্বরে টিকিটিও দেখা যায়নি বিজেপি নেতাদের।

সামনেই পুরভোট। কয়েকমাস পরই নতুন বছরের শুরু দিকেই রাজ্যে বিধানসভা ভোট। এবার তাই রাজ্যে বুথ কমিটিগুলির দিকে নজর দিতে তৎপরতা নিয়েছে রাজ্য বিজেপি। দলের একাংশের অভিযোগ, রাজ্যের বহু বুথেই বিজেপির কোনও কমিটি নেই। কিন্তু দলের রাজ্য নেতৃত্বের কাছে মান রাখতে কয়েকজন নেতা-কর্মীর নাম দিয়ে কমিটির তালিকা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। হিসেবের খাতায় সেই সব কমিটি থাকলেও বাস্তবে এমন বহু কমিটিরই কোনও অস্তিত্ত্ব নেই। তারই ফলস্বরূপ এখনও এরাজ্যের বহু জায়গাতেই এখনও বিজেপির সাংগঠনিক শক্তি উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়েনি। বরং বহু জায়গাতেই আগের চেয়ে দলের শক্তি কমেছে।

ইতিমধ্যেই একাধিক বৈঠকে বুথ কমিটি নিয়ে দলীয় নেতৃত্বকে সতর্ক করে দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বুথ কমিটিগুলবিকে সক্রিয় করতে জোরদার তৎপরতার সঙ্গে কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন দলের জেলা নেতৃত্বকে। দলের রাজ্য় নেতৃত্বের তরফএও জেলাগুলির সঙ্গে ক্রাগত যোগায়োগ রেখে বুথ কমিটি মজবুত করতে নানা টিপস দেওয়া হচ্ছে।