তিমিরকান্তি পতি (বাঁকুড়া):   বিজেপির ধারাবাহিক সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে বাইক মিছিল করল বাঁকুড়ার জয়পুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস। আজ শনিবার দলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরার নেতৃত্বে স্থানীয় সাঁইতাড়া থেকে জয়পুর এই বাইক মিছিলে কয়েকশো দলীয় কর্মী সমর্থক যোগ দেন। তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে উন্নয়নকে স্তব্ধ করতেই রাজ্যের সঙ্গে জেলার বিভিন্ন অংশে বিজেপি সন্ত্রাস চালাচ্ছে। তৃণমূল কর্মীদের মারধোরের পাশাপাশি তাদের দলীয় কার্যালয় গুলিও আক্রমনের শিকার। এই ঘটনার প্রতিবাদেই জয়পুর ব্লকের প্রতিটি বুথ থেকেই কর্মী সমর্থকরা বাইক মিছিলে অংশ নিয়েছেন।

মিছিল শুরুর আগে তৃণমূলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরা সাংবাদিকদের বলেন, রাজ্যের উন্নয়নকে স্তব্ধ করতে বিজেপি ও সিপিএমের হার্মাদ বাহিনী তৃণমূলের নেতা, নেত্রী থেকে কর্মীদের মারধোর থেকে অসভ্য ভাষায় গালিগালাজ করছে। পাশাপাশি খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ। এই ঘটনার প্রতিবাদেই তারা ধিক্কার মিছিলের আয়োজন করেছেন। বিজেপি এলাকার শান্তি বিঘ্নিত করার চেষ্টা করছে অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যেই মানুষ আজ এই মিছিলে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিয়েছেন।

সবশেষে জুনিয়র চিকিৎসকদের কর্মবিরতি নিয়েও মুখ খোলেন রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। আন্দোলনকারী চিকিৎসকদের সমস্যা বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আলোচনায় বসার পরামর্শ দিয়ে তিনি স্বাস্থ্য পরিষেবা স্বাভাবিক রাখার আবেদন জানান।

উল্লেখ্য, ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসে উত্তপ্ত গোটা রাজ্য। বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বাঁকুড়াও। ভোটের ফলাফল প্রকাশে পর দেখা গিয়েছে বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রে জয়জয়কার বিজেপির। এরপরেই বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাঁদের কর্মীদের ভয় দেখাচ্ছে। এমনকি পার্টি অফিসও ভেঙে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ। যদিও এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই বলেই দাবি। পালটা তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি ও সিপিএমের হার্মাদ বাহিনী তৃণমূলের নেতা, নেত্রী থেকে কর্মীদের মারধোর থেকে অসভ্য ভাষায় গালিগালাজ করছে। পাশাপাশি খুনের হুমকি দিচ্ছে। আর এই ঘটনার প্রতিবাদেই এদিনের এই বাইক মিছিল বলে দাবি তৃণমূল নেতৃত্বের।