জম্মু: মেহেবুবা মুফতির সরকারের থেকে সমর্থন প্রত্যাহারের পর এই প্রথম জম্মুতে এলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ৷ তিনি এক জনসভায় বলেন ক্ষমতায় টিঁকে থাকতে চায়নি বিজেপি৷ তাদের লক্ষ্য জম্মু কাশ্মীরের উন্নয়ন৷

তিনি আরও বলেন, কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ ও সইফুদ্দিন সোজকে ক্ষমা চাইতে হবে কাশ্মীর সম্পর্কে তাঁদের মন্ত্যবের জন্য। শুধু তাই নয় এই দুই বর্ষীয়ান নেতার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে৷ উল্লেখ্য, ‘ভারতীয় সেনার হাতে সন্ত্রাসবাদীদের থেকে সাধারণ মানুষ খুন হয় বেশি’ গুলামের এই মন্তব্য ঘিরেই দানা বেঁধেছে বিতর্ক।

এদিন তীব্র ভাষায় কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। পিডিপি নেতৃত্বাধীন সরকার থেকে বিজেপি সমর্থন প্রত্যাহারের ফলে ইতিমধ্যেই ভেঙে গেছে জোট সরকার। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস ‘তার নিজস্ব রঙ দেখাতে শুরু করেছে’ বলে জম্মুর জনসভা থেকে বিদ্রুপ করলেন অমিত শাহ।

জম্মুতে পালিত হয় বলিদান দিবস৷ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের অবদানকে শ্রদ্ধা জানাতে বিশেষ এই দিবস৷ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধা জানিয়ে জম্মুতে মহা মিছিল করেন অমিত শাহ৷ ছিলেন জম্মু-কাশ্মীর বিজেপির প্রধান রবিন্দর রায়না সহ বিজেপি নেতৃত্ব৷ লোকসভা ভোটের আগে জম্মু-কাশ্মীরে দাগ কাটতে চায় বিজেপি৷ যদিও বলিদান দিবস পালন করতেই মহাদিবস বলে জানাচ্ছেন অমিত শাহ৷

এদিকে লস্কর-ই-তইবা কিভাবে কংগ্রেসের একজন নেতার বক্তব্যকে সমর্থন জানাচ্ছে সে প্রশ্নও তুলেছেন বিজেপি সভাপতি৷ দুই নেতার বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি দেশের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে কংগ্রেসকে – জম্মু থেকে স্পষ্ট বার্তা অমিতের।

সূত্রের খবর, বিজেপি-পিডিপি ভাঙনের পরই অমিত শাহের জম্মুতে বৈঠকে বসার কথা ছিল৷ বৈঠকে সময় দিতে না পারায় মহা মিছিলের পরিকল্পনা করে জম্মু বিজেপি৷

মহামিছিলের ২টি কারণ স্পষ্ট, প্রথমত, বিজেপি-পিডিপি জোট ভাঙনের পর উপত্যকায় বিজেপির অবস্থান ঠিক কী হবে, তা কর্মীদের জানাতে অমিত শাহর জম্মু সফর, দ্বিতীয়ত, জম্মুতে বিজেপির খুঁটি বেশ মজবুত৷ গত লোকসভা ভোটে জম্মু, লাদাখ,উধমপুর বিজেপির দখলে আসে,তাই লোকসভা ভোটকে সামনে রেখে জম্মুতে বিজেপির বিস্তার বাড়াতেই মহা মিছিল৷