স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : উমা বিদায়ের পরেই ২০১৯ লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি শুরু করে দিল বিজেপি। ৪২ টি লোকসভার মধ্যে কমপক্ষে ৩০ টি জয়ের লক্ষ্যে মঙ্গলবার রাজ্য বিজেপি দফতরে লোকসভা পালকদের নিয়ে ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হল বলে জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘাওয়াল, কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ, রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রাহুল সিনহা-সহ রাজ্য নেতৃত্ব।

৪২টি লোকসভার মধ্যে প্রত্যেকে পাঁচটি করে মোট ২০টি লোকসভার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে চার কেন্দ্রীয় নেতা জেপি নাড্ডা, অর্জুনরাম মেঘওয়াল, মনোজ সিনহা ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়। আসানসোলের দায়িত্ব পেয়েছেন বাবুল সুপ্রিয় ও দার্জিলিংয়ের দায়িত্ব সুরিন্দর সিং আলুয়ালিয়ার উপরে বর্তেছে। লোকসভার পালকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে রাজ্যের ১০ জন নেতার উপরে৷ প্রত্যেককে ২টি করে লোকসভার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিজেপি সূত্রে খবর, রীতেশ তিওয়ারি পেয়েছেন বোলপুর ও বহরমপুরের দায়িত্ব৷ রাজকমল পাঠক দেখবেন ডায়মন্ডহারবার ও জয়নগর৷ অমিতাভ রায়ের দায়িত্ব আরামবাগ ও মথুরাপুর লোকসভা কেন্দ্রে৷ রাহুল সিনহা পেয়েছেন মুর্শিদাবাদ ও শ্রীরামপুরের দায়িত্ব৷ দিলীপ ঘোষ দেখবেন ঝাড়গ্রাম ও বনগাঁ৷ রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের দায়িত্ব ঘাটাল ও যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র। অন্যান্য যাঁরা দায়িত্ব পেয়েছেন, তাঁরা হলেন অসীম সরকার, দীপেন প্রামাণিক, জর্জ বেকার ও শমীক ভট্টাচার্য৷ এছাড়া বুথস্তর পর্যন্ত সংগঠন সাজানো হয়েছে৷ একেক জন নেতার হাতে দু’টি বুথ রয়েছে৷এভাবে পাঁচজন নেতার সঙ্গে সংযোগ রাখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে একজন নেতাকে৷এভাবে লোকসভাস্তর পর্যন্ত সাজানো হয়েছে৷ লোকসভা পালকদের অধীনে রয়েছেন বিধানসভা ভিত্তিক একেক জন পর্যবেক্ষক৷

এই নেতাদের জন্য ৫০টি কাজও বেধে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে৷বিজেপি সূত্রে খবর, প্রতিটি লোকসভা ও বিধানসভা এলাকায় একটি করে সদর কার্যালয় তৈরি করতে বলা হয়েছে৷বুথ কমিটি, জেলা কমিটিও গঠন করতে বলা হয়েছে৷গত কয়েকমাসে বিজেপি জনসংযোগ বাড়াতে বিস্তারক যোজনা কর্মসূচি নিয়েছিল৷ কিন্তু সেই কর্মসূচিতে ৫০ শতাংশ বুথে যেতেই পারেনি বিজেপি৷ওই ৫০ শতাংশ বুথে ডিসেম্বরের মধ্যে পৌঁছতে হবে বলে কেন্দ্রীয় নেতারা বিজেপির রাজ্য নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে৷এছাড়া কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্পগুলি নিয়েও প্রচার করতে বলা হয়েছে৷ বৈঠকের পর দিলীপ ঘোষ জানান, ২০১৯-এ লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল এদিন থেকেই৷

রাজ্যে আসন্ন তিনটি উপ-নির্বাচনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তিন নেতার উপরে৷ সবং ও নোয়াপাড়া বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে যথাক্রমে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় ও সঞ্জয় সিংয়ের উপরে। উলুবেড়িয়া লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের দায়িত্ব পড়েছে সায়ন্তন বসুর উপরে। পুরোটা কো-অর্ডিনেট করবে প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়।