স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজেপি যুব মোর্চার CESC অভিযানে পুলিশের জলকামান, লাঠিচার্জ এবং কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ার ঘটনার বিস্তারিত রিপোর্ট পৌঁছবে অমিত শাহ’র কাছে। দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় পার্টিতে মঙ্গলবারের ঘটনার সম্পূর্ণ রিপোর্ট পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি কৈলাস বিজয়বর্গীয় বিষয়টি কার্যকরী সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডাকে জানিয়েছেন। ঘটনাচক্রে মঙ্গলবারই রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ, অন্যতম নেতা মুকুল রায়, পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় অমিত শাহ-এর সঙ্গে বৈঠকে বসবেন। বৈঠকে উপিস্থিত থাকবেন রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) সুব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং কিশোর বর্মন।

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সমস্ত ঘটনার রিপোর্ট কেন্দ্রীয় পার্টিকে দেওয়া হয়েছে। এটাই স্বাভাবিক পক্রিয়া।”

একটি কর্পোরেট সংস্থা এবং তার কর্ণধারকে উদ্দেশ্য করে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ওই কর্পোরেট সংস্থার যোগসাজস আছে। মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর ভাইপোর কিছু লাভ আছে। নয়ত, সরকার এইভাবে পুলিশ লেলিয়ে দিত না।

বিজেপির অভিযোগ, জলকামান এবং কাঁদানে গ্যাস চার্জ করার পরই কলকাতা পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলো। বিজেপি কর্মীদের জখম করাই উদ্দেশ্য ছিল পুলিশের। কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে লাঠিচার্জ নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া এখনো পাওয়া যায়নি। প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সেন্ট্রাল এভিনিউ এর উত্তর ই-মল এর দিকে ব্যারিকেট ছিল। ওই দিক থেকে ইটের টুকরো ধেয়ে আসে। পুলিশ ইট মেরে বিজেপি কর্মীদের জখম করেছে।”