কাঁথিঃ আপনাদের এখানে(কাঁথিতে) তৃণমূল কাউন্সিলররা খুব উন্নতি করেছেন। তাদের উন্নয়নের হিসেব-নিকেশ আমাদের নিতে হবে। রাস্তাঘাটে কোনও উন্নয়ন দেখা যাচ্ছে না। হয়তো কাউন্সিলরদের বাড়িতে গেলে উন্নয়ন দেখা যাবে। সোমবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথিতে জনসংযোগমূলক কর্মসূচি চায়ে পে চর্চাতে অংশ নিয়ে এমনভাবেই তৃণমূল কাউন্সিলরদের কটাক্ষ করলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু।

তিনি বলেন, “আমি কাঁথিতে থাকি না। তবে কাছের মানুষ আমাদের জানাচ্ছেন এক একজন কাউন্সিলরকে কত উন্নতি করছেন।” সামনেই পুরসভা নির্বাচন। আর এই পুরসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল- কংগ্রেসের অন্যতম বিরোধী শক্তি বলা চলে বিজেপিকে। তবে খোদ কাঁথি শহরে অধিকারী গড়ের মাঝে বিজেপি কতটা প্রভাব ফেলতে পারবে তা নিয়ে সায়ন্তনবাবুকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, “অধিকারী গড় বলে আর কিছুই নেই। গতবারে আমাদের ডাক্তারবাবু এখানের প্রার্থী ছিলেন। তখন আমরা মাত্র ১ লক্ষ ভোটে হেরেছিলাম। এছাড়াও দুটি বিধানসভার মানুষ ভোটই দিতে পারল না। যদি তারা ভোট দিতে পারতো তাহলে ডাক্তারবাবু গত নির্বাচনে প্রায় দু’লক্ষ ভোটে জয়ী হতেন।”

একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “আগামী পৌরসভা নির্বাচনে মানুষ লড়াই করছে। আর আমরা মানুষের সাথে আছি। ভোট হতে হবে শান্তিপূর্ণভাবে, ভোট হতে হবে গণতান্ত্রিক অধিকারকে নিয়ে। ধুমকে চমকে কেউ যদি ভোট করাতে যায় তার ফল সে পাবে এবং মানুষের দ্বারা প্রতারিত হবে। কাঁথিতে এখন আমরা আগামী পুরসভা নির্বাচনে ২১টি আসনে জেতার কথা ভাবছি।” দীর্ঘদিন ধরে অধিকারী গড়ের এই কাঁথি পৌরসভা বিরোধী-শূন্য হয়ে আসছে। তবে আগামী পুরনির্বাচনেও বিরোধী-শূন্য হবে এবং সেই বোর্ড বিজেপি দখল করবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন সায়ন্তনবাবু।

তিনি বলেন, “এবারেও বিরোধী শূন‍্য বোর্ড হবে এবং বিজেপি দখল দেবে। আমাদের লোকসভার ফল দেখুন আপনারা সব বুঝতে পারবেন। গত লোকসভায় আমাদের ফল যা তখন আমাদের কোনো সংগঠন ছিল না। কিন্তু এখন আমরা একটা সংগঠন তৈরি করতে পেরেছি।” তিনি অধিকারী পরিবারকে কটাক্ষ করে বলেন, “মানুষ অধিকারী পরিবারের ওপর অসন্তুষ্ট আছেন। অধিকারী পরিবারের শোষণের জন্য সাধারণ মানুষ জানেন এই অধিকারী পরিবারের দ্বারা কাঁথির উন্নয়ন হবে না। একটা পরিবারের হাতে দীর্ঘদিন ধরে কিভাবে একটা শহর এবং একটা মহকুমা থাকতে পারে এই প্রশ্ন আমরা তুলতে চাই”

সোমবার সকালে কাঁথি শহরের মেচেদা বাইপাসে বিজেপির চায়ে পে চর্চা কর্মসূচিতে অংশ নেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। এদিন সায়ন্তনবাবু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কাঁথি সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ