নয়াদিল্লি: অনুদানের টাকাতেই ভরে গিয়েছে বিজেপির তহবিল! চলতি বছরে বিজেপির তহবিলে কেবল অনুদান এসেছে ৪৩৭ কোটি ৩৫ লক্ষ টাকা। যা গতবারের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বেশি। বিগত লোকসভা নির্বাচনের মত অনুদানের টাকার অঙ্কেও সমস্ত রাজনৈতিক দলকে পিছনে ফেলে দিয়েছে বিজেপি।

সম্প্রতি অলাভজনক সংস্থা ডেমোক্রেটিক রিফর্মস অ্যান্ড ন্যাশনাল ইলেকশন ওয়াচ দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অনুদান তহবিল সমীক্ষা করে এই তথ্য পেশ করেছে। সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, বিজেপির অনুদানের তালিকায় ১ হাজার ২৩৪ জন রয়েছেন। এঁদের মধ্যে একেবারে উপরের সারিতে রয়েছে কর্পোরেট সেক্টর এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবৃন্দ। মোট অনুদানের ৩৯ শতাংশই এসেছে মহারাষ্ট্র এবং কর্পোরেট সেক্টর থেকে। এছাড়া অন্যান্য যাঁরা বিজেপিকে অনুদান দিয়েছেন, তাঁদের কারওরই টাকার অঙ্ক ২০ হাজার টাকার নীচে নেই। তবে এই তহবিলে যাঁরা অনুদান দিয়েছেন, তাঁদের অধিকাংশেরই চেক নম্বর এবং প্যান নম্বর দেওয়া নেই বলেও সংস্থার তরফে জানা গিয়েছে।  

জানা গিয়েছে, ২০১৩-১৪ আর্থিক বছরে বিজেপির তহবিলে অনুদান পড়েছিল ১৭০ কোটি ৮৬ লক্ষ টাকা। এক বছরের মধ্যে অর্থাৎ ২০১৪-১৫ আর্থিক বছরে এটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩৭ কোটি ৩৫ লক্ষ টাকায়। অর্থাৎ একলাফে ১৫৬ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে বিজেপির তহবিল। এই অনুদান তহবিলে কংগ্রেস, সিপিআই এবং সিপিএমকেও পিছনে ফেলে দিয়েছে বিজেপি। যদিও শতাংশের বিচারে বিজেপির তহবিলকে পিছনে ফেলে দিয়েছে শরদ পওয়ারের জাতীয় কংগ্রেস। গত একবছরে জাতীয় কংগ্রেসের তহবিল ১৪ কোটি ২ লক্ষ টাকা থেকে ৩৮ কোটি ৮২ লক্ষ টাকায় দাঁড়িয়েছে। অর্থাৎ ১৭৭ শতাংশ বৃদ্ধি হয়েছে। আবার বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি) গত ১০ বছরে ২০ হাজার টাকার বেশি অনুদান নেয়নি বলে দাবি জানিয়েছে।      

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।