স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সারা কলকাতায় নরেন্দ্র মোদীর মুখ দেখতে না পেয়ে বেশ ক্ষেপে গিয়েছিলেন অমিত শাহ৷ তাঁর মনে হয়েছিল, কলকাতায় নরেন্দ্র মোদীর মুখ ব্যানার-হোর্ডিং থেকে যেন ‘ভ্যানিশ’হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু এমনটা হওয়ার কথা ছিল না৷ বিজেপি সারা দেশজুড়েই আউটডোর হোর্ডিং-ব্যানারের উপর জোর দিয়েছে৷

উঁচু লোহার খাঁচায় মোদী-শাহের মুখের ছবি কলকাতা বাদে দেশের সব রাজ্যেই দেখা গিয়েছে৷ কারণ খুঁজতে, রাজ্য দলের নেতৃত্বকে সম্প্রতি প্রশ্ন করেছেন অমিত শাহ৷ রাজ্য নেতারা দলের সর্বভারতীয় সভাপতিকে জানিয়েছেন, হোর্ডিং, বিলবোর্ড মালিকরা ভীত৷ তাঁরা তৃণমূল কংগ্রেসের ভয়ে বিজেপিকে হোর্ডিং, বিলবোর্ড ছাড়বেই চাইছে না৷ আউটডোর এজেন্সিগুলির মাথাদের নাকি কলকাতার মেয়র ফিরহাদ (ববি) হাকিম হুমকি দিয়ে বলে রেখেছেন, শহরে নরেন্দ্র মোদী-শাহর ছবি যেন না থাকে৷ বিজেপির অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছিলেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম৷

বৃহস্পতিবার, রাজ্যে বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন৷ বিজেপির দাবি কলকাতায় এম জি রোডে ওই ভিডিও শুট করা হয়েছে৷ ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কলকাতা পুরসভার একটি ট্রাকের উপর রাস্তার ধার থেকে বিজেপির ফ্লেক ব্যানার তুলে জমা করা হচ্ছে৷ কলকাতা পুরসভার কর্মীরা ওই কাজ করছে৷ কিছু ব্যানার রাস্তার রেলিংয়ের ধারে রাখা রয়েছে৷ এক বিজেপি কর্মী বারবার বলছেন, আপনারা কারা? সারা রাত আমরা ব্যানার লাগিয়েছেন আপনারা কেন খুলছেন৷ আপনারা যদি কলকাতা পুরসভার কর্মীরা কীভাবে ব্যানার খুলতে পারেন? আর আপনাদের সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের লোক কই?

বিজেপি সূত্রে যা খবব, ওই ভিডিওটি নিয়ে গেরুয়া শিবির নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানাবে৷ কিছুদিন আগেই, দেশের বড়বড় আউটডোর এবং বিজ্ঞাপন এজেন্সিগুলির মাথাদের অমিত শাহ কলকাতায় পাঠিয়ে দেন৷ কলকাতায় বিলবোর্ডে ব্যবসা কীভাবে চলছে তা তাঁদের দেখে তা দেখে আসতে বলেন৷ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির নির্দেশ মতো আউটডোর এবং বিজ্ঞাপন এজেন্সিগুলির মালিকরা কলকাতায় হাজির হন৷ সংস্থাগুলির কলকাতার প্রতিনিধিদের ডেকেও নেওয়া হয়৷

কিন্তু বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে কলকাতার প্রতিনিধিরা সংস্থার মালিকদের সামনে পরিষ্কার জানিয়ে দেয় তৃণমূল কংগ্রেসের ভয়েই কলকাতার রাস্তায় মোদীর ছবিওয়ালা হোর্ডিম দেওয়া যাচ্ছে না৷ আউটডোর হোর্ড্ং ব্যবসায়ীদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, মোদীর ছবি দেখলে পরিণতি খুবই খারাপ হবে৷ সারা কলকাতায় নরেন্দ্র মোদীর ছবিওয়ালা ছোট ছোট ফ্লেক্স-ব্যানার হোর্ডিং লাগাতে তৎপর হয়েছে বিজেপি৷ বিশালাকার আউটডোর হোর্ডিং না থাকলেও ছোট ব্যানার ফেস্টুনে কাজ চালাতে চাইছে বিজেপি৷