সৌমেন শীল, নয়াদিল্লি: বুধবারই যন্তর মন্তরের সামনে আম আদমি পার্টির ডাকা ধর্ণায় অংশগ্রহণ করেছিল মোদী বিরোধী বেশিরভাগ দল৷ সেখান থেকে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে মোদী-সাহ জোট এবং তাদের শিবিরকে হটানোর পরিকল্পনায় এক ছাতার তলায় আসে দলগুলি৷ এই ধর্ণার পাল্টা দিতে বৃহস্পতিবার যন্তর মন্তর থেকে কিছুটা দূরে সংসদ মার্গে কালা দিবস পালনে একত্রিত হল বিজেপি কর্মী-সমর্থকেরা৷

যন্তর মন্তরে বিরোধী দলের ধর্ণাকে ইতিমধ্যেই ফ্লপ শো বলে কটাক্ষ করছে গেরুয়া শিবির৷ এদিকে বিজেপি নেতা মনোজ তিওয়ারি বলেন, মহাজোটে সামিল দলগুলিকে জনগণ সমর্থন করছে না৷ পাশাপাশি কেজরিওয়ালকেও কটাক্ষ করে বলেন, চার বছরের কার্যকালেই দিল্লির বেহাল অবস্থা করে দিয়েছে কেজরিওয়ালের সরকার৷ এই সরকারের চার বছরের পূর্তিতে কালা দিবস পালনে নেমেছে বিজেপি৷

সেই সঙ্গে এও জানানো হয়, যন্তরমন্তরে বিরোধীরা অনেক অপরিচ্চন্ন করে রেখেছে, তার আগে শুদ্ধিকরণ প্রয়োজন, তারপর ফের আপের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নামা হবে৷ মনোজ আরও বলেন, কলকাতার পর বিভিন্ন নেতা-নেত্রীরা এবার দিল্লিতে শক্তি প্রদর্শনের চেষ্টায়৷ কিন্তু জনগণের সমর্থন তাঁরা পাচ্ছে না৷ এর থেকেই প্রমাণিত হয় দিল্লিবাসী কেজরিওয়ালের সঙ্গে নেই৷ পাশাপাশি নিশানায় ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷

এদিকে, পশ্চিমবঙ্গে চিটফান্ড কাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তরা বৃহস্পতিবার যন্তর মন্তরের সামনে ধর্ণায় বসে৷ ‘তৃণমূল সবথেকে বড় চিটফান্ড’ এমনই অভিযোগ তাদের৷ বুধবার বমোদী বিরোধী ধর্ণামঞ্চের কয়েক কিলোমিটারের মধ্যেই, বলা যায় ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে এবার তৃণমূল সুপ্রিমোর বিরুদ্ধে ধর্ণায় বসেছ চিটফান্ডকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তরা৷ সারাদিন ধরেই তারা এখানে থাকবে এবং পরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে তাদের অভিযোগও জানাবে৷