কলকাতা: করোনা আবহেই নতুন রাজ্য কমিটি গড়ে ফেলল বিজেপি। সোমবার বিকেলে অনলাইনে দলের নবগঠিত রাজ্য কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করলেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মার্চে বিজেপির এই নয়া কমিটি তৈরির কথা থাকলেও করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার জেরে তা স্থগিত হয়ে যায়।

বিজেপিতে নাম লিখিয়েই পুরস্কার অর্জুনের। ঠাঁই পেলেন দলের রাজ্য কমিটিতে। অন্যদিকে লকেটকে সরিয়ে দলের মহিলা মোর্চার সভানেত্রী করা হল ফ্যাশন ডিজাইনাল অগ্নিমিত্রা পলকে।

পাখির চোখ ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন। সেই লক্ষেই অলআউট ঝাঁপাবে গেরুয়া শিবির। করোনা আবহেও তৎপরতায় খামতি নেই। অনলাইনেই দলের নতুন রাজ্য কমিটি ঘোষণা করলেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রাজ্য কমিটির নতুন পদাধিকারিদের নাম ঘোষণার পাশাপাশি মোর্চা সংগঠনগুলির সভাপতির নামও ঘোষণা করেন দিলীপ ঘোষ।

বিজেপির নয়া রাজ্য কমিটিতে ১২ জন সহ-সভাপতি রয়েছেন। কমিটিতে রাখা হয়েছে ৫ সাধারণ সম্পাদক ও ১০ সম্পাদককে। এরই পাশাপাশি সাম্প্রতিক সময়ে অন্য রাজনৈতিক দল থেকে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো অনেককেই বিজেপির বিভিন্ন কমিটিতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সোমবার অনলাইনে ঘোষিত বিজেপির নতুন রাজ্য কমিটিতে সহ-সভাপতি হয়েছেন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ ড. সুভাষ সরকার, বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী,জয়প্রকাশ মজুমদার, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দেবাশীষ মিত্র, ঋতেশ তিওয়ারি, রাজকমল পাঠক, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, অর্জুন সিং, ভারতী ঘোষ, মাফুজা খাতুন, দীপেন প্রামাণিক।

৫ সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোর্তিময় সিং মাহাতো, সায়ন্তন বসু, সঞ্জয় সিং ও রথীন বসু।

রাজ্য কমিটিতে রয়েছেন আরও ১০ সম্পাদক। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন তুষার মুখোপাধ্যায়, দীপাঞ্জন গুহ, তুষার ঘোষ, বিবেক সোনকার, শর্বরী মুখোপাধ্যায়, সব্যসাচী দত্ত, সংঘমিত্র চৌধুরি, অরুণ হালদার, তনুজা চক্রবর্তী, ফাল্গুনী পাত্র।

লকেট চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ফ্যাশন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পালকে। একইভাবে যুব মোর্চায় দেবজিৎ সরকারের বদলে দায়িত্বে আনা হয়েছে বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ-কে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প