নয়াদিল্লি: বিরোধিতার মাঝেই কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্তের পর এখনও পুরোপুরি ছন্দে ফেরেনি কাশ্মীর। এরমধ্যেই নতুন বিতর্ক। বিজেপির তারকা সাংসদ হংস রাজ হংস বলেছেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের যা মূলত জেএনইউ নামে পরিচিত তাঁর নাম বদলে ফেলা উচিত।

শুধুমাত্র এটাতেই তিনি থেমে যাননি, শনিবার দিল্লি জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে জেএনইউ-এর নাম বদলে ফেলার প্রস্তাব দেন পাঞ্জাবি এই শিল্পী। তাঁর বক্তব্য জেএনইউয়ের নাম বদলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম হোক এমএনইউ। যা হবে মোদীর নামে।

জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ সম্পর্কিত একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তিনি তাঁর বক্তব্যে এইরকম আবদার করেছেন। উত্তর-পশ্চিম দিল্লির বিজেপি সাংসদ দৃঢ়ভাবে চান এই বদল আসুক।

বিজেপি সাংসদ হংস রাজ হংস অনুষ্ঠানে বলেন, “প্রার্থনা করুন ওখানে সবাই যেন শান্তিতে থাকতে পারেন। কোনও বোমা যেন না ফাটে। এর আগে সবাই যে ভুল করছেন তার মাসুল এখন আমাদের গুনতে হচ্ছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের জগত জোরা নাম। তবে আমি এই প্রথমবার এলাম। প্রধানমন্ত্রী মোদী দেশের জন্য অনেক কিছুই করেছেন। আমার প্রস্তাব, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম বদল করে জেএনইউ থেকে এমএনইউ(মোদী নরেন্দ্র ইউনিভার্সিটি) করা হোক। কারন মোদীজির নামেও কিছু এদেশে কিছু তৈরি হওয়া উচিত।”

গত লোকসভা নির্বাচনে উত্তর-পশ্চিম দিল্লি আসন থেকে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন হংস রাজ হংস। আম আদমি পার্টির গগন সিং ও কংগ্রেসের রাজেশ লিলেটাথিয়াকে বিপুল ভোটে হারিয়ে বিজেপি টিকিটে সাংসদ নির্বাচিত হন তিনি। তিনি শেষ এপ্রিলে বিজেপি তে যোগদান করেছিলেন।

মোদীকে নিয়ে বিশ্বাসী হংস রাজ হংস। তাঁর একটাই বক্তব্য, “মোদী হ্যা তো ইস দেশ মে সবকুছ মুমকিন হ্যায়।”