নয়াদিল্লি: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একের পর হামলা৷ তারই প্রতিবাদে সরব ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা৷ জেএনইউ কাণ্ডের তীব্র নিন্দা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের বক্তব্য তুলে ধরলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার তথা বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর৷ কড়া নিন্দা করেছে মাত্র দু’দিন আগে ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়া ইরফান পাঠানও৷ তবে দোষীদের কড়া শাস্তির দাবি তুলেছেন মোদীর দলেই সাংসদ গম্ভীর৷

রবিবার সন্ধ্যায় জেএনইড ক্যাম্পাসে সবরমতী গার্লস হস্টেলে ঢুকে হামলা চালায় মুখ ঢাকা দুষ্কৃতিরা৷ মাথা ফাটিয়ে দেওয়া দেওয়া হয়েছে সভানেত্রী ঐশী ঘোষের৷ জহওরলাল ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়নের তরফে অভিযোগ বিজেপির ছাত্র সংগঠন এভিবিপি-র বিরুদ্ধে৷

কোনওভাবেই এই হিংসা বরদাস্থ করা উচিত নয়! এভাবেই জেএনইউ কাণ্ডের তীব্র নিন্দা পাঠান। টুইটারে ভারতীয় দলের প্রাক্তন বাঁ-হাতি পেসার লিখেছেন, ‘রবিবার জেএনইউ-তে যা ঘটেছে এটা মোটেই নিয়মিত ঘটনা নয়। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ভিতরে হোস্টেলের মধ্যেই ছাত্রদের আক্রমণ করেছে সশস্ত্র দুষ্কৃতিরা। এটা মোটেই দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে না।’

পাঠানের সুরেই জেএনইউ ঘটনার নিন্দা করে বিজেপি-র অস্বস্তি বাড়িয়েছেন মোদী-শাহের দলেরই সাংসদ গৌতম গম্ভীর। টুইটারে নিজের অ্যাকাউন্টে গম্ভীর লিখেছেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরে হিংসা দেশের স্পিরিটের পরিপন্থী। ছাত্রদের মতাদর্শ যাইহোক না কেন, এভাবে আক্রমণ করা সমচীন নয়। যে গুন্ডা’রা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে, তাদের কড়া শাস্তি হওয়া উচিত৷’ ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন ব্যাটমিন্টন তারকা জ্বালা গুট্টা, ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি ও টেনিস তারকা রোহন বোপন্না৷

এই ঘটনার পরই দেশ জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। যাদবপুর-সহ বেশ কিছু এলিট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এর প্রতিবাদে মিছিল করা হয়৷ শুধু ছাত্রছাত্রীরাই নয়, সমাজের শিক্ষিত সমাজও এই প্রতিবাদে পথে নামে৷ মুম্বইয়ে জেএনইউ-র প্রতিবাদে রাস্তায় নামেন বলিউডের হস্তিরা৷