মালদা: সভাপতি পদ হারিয়ে দলীয় কার্যালয়ে বসেই দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন মালদা জেলার বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি সঞ্জীব মিশ্র। তিনি রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধেই অভিযোগ করেন।

বিস্ফোরক অভিযোগ এনে তিনি বলেন, শীর্ষ নেতৃত্ব কিছু পেটোয়া লোকজনকে বিজেপির সদস্য করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করছে।

লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থীপদ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মালদা জেলার প্রাক্তন সভাপতি সঞ্জীব মিশ্র। সেই সময় থেকে শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে সঞ্জীববাবুর মনোমালিন্য হয়। আর সেই কারণেই সঞ্জীববাবুকে সরানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে সূত্র মারফত।

সঞ্জীববাবু বলেন, শীর্ষ আর্থিক লোভের জন্যেই এমন করেছেন। স্পষ্ট ভাষায় তিনি বলেন, জেলা থেকে কাটমানি তোলার ক্ষেত্রে শীর্ষ নেতৃত্বকে বাধা দিয়েছিলেন তিনি। তাই তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। সঞ্জীববাবু বলেন দল এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করবেন তিনি। প্রয়োজনে আদালতে দারস্থ হবেন।

একটি লোকসভা আসন ও হবিবপুর উপনির্বাচনেও তার নেতৃত্বে জয় পেয়েছে এ জেলাতে বিজেপি দল। ফলে হঠাৎই তাকে অপসারণ করায় অপমানিত বোধ করেছেন তিনি। এমন ঘটনার পর জেলার রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে। তবে নব নিযুক্ত সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল এই বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন।

এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। তিনি বলেছেন, “সঞ্জীব মিশ্রের বক্তব্য আমি এখনও শুনিনি। তবে দল বিরোধী কোনও কিছু ঘটে থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”