স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: অল্পের জন্য আগুনের হাত থেকে রক্ষা পেল বিজেপি প্রার্থীর বাড়ি। এলাকার মানুষ ও দমকল কর্মীদের তৎপরতায় আগুন বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ার আগেই নিভিয়ে ফেলা হয়েছে। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ থানা এলাকার এই ঘটনা ঘটেছে৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভোওঁর এলাকার বিজেপি প্রার্থী সুশীল মণ্ডল। সকালে তাঁর বাড়ির পাশেই খড়ের পালুইয়ে আগুন লাগে৷ সেই আগুন দ্রুত বাড়তে থাকে৷ ফলে সুশীলবাবু ও তাঁর বাড়ির আশপাশে আতঙ্ক ছড়ায়৷

আরও পড়ুন: প্রতি রাজ্যে মোমবাতি মিছিলের ডাক কংগ্রেসের

আগুন নেভাতে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। অন্যদিকে বালুরঘাট থেকে দমকলের একটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। প্রায় ঘন্টা খানেকের প্রচেষ্টায় আগুন পুরোপুরি আয়ত্তে চলে আসে৷ স্থানীয় বাসিন্দারা জানালেন, সময়মতো দমকল পৌঁছানোয় আগুনে বাড়িঘরের কোনও ক্ষতি হয়নি।

এদিকে আগুন লাগার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর৷ এই ঘটনায় তৃণমূলকেই দায়ী করেছে বিজেপি। কুমারগঞ্জ থানায় এ নিয়ে লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন বিজেপি প্রার্থী সুশীল মণ্ডল। যদিও অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যে বলে দাবি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

আরও পড়ুন: এবার ভারত পাকিস্তান সীমান্তে বৈদ্যুতিক তার

জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক বাপি সরকারের অভিযোগ, ভোওঁর পঞ্চায়েতের ঝারা সংসদ থেকে তাঁদের হয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সুশিল মণ্ডল। বিজেপি হয়ে মনোনয়ন জমা দেওয়ায় তৃণমূলের পক্ষ তাঁকে নানাভাবে হুমকিও দেওয়া হয়েছে। তার পরেও সুশীল মণ্ডল মনোনয়ন প্রত্যাখ্যানে রাজি না হওয়ায় তৃণমূলের লোকেরাই তাঁর খড়ের পালুইয়ে আগুন লাগিয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন।

ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মফিজুদ্দিন মিয়াঁ এ বিষয়ে জনান, ঘটনার সঙ্গে তাঁদের দলের কেউই জড়িত নেই। বিজেপির দলীয় কোন্দলের জেরেই কেউ হয়তো খড়ের পালুইয়ে আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে তিনি পালটা অভিযোগ করেছেন৷ পাশাপাশি তিনি এই ঘটনার তদন্তেরও দাবি করেছেন।

আরও পড়ুন: তপ্ত শহরে বিকিনিতে উত্তাপ বাড়াল টেলি নায়িকারা

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.