কলকাতা:  গত লোকসভা নির্বাচনের পরে রাজ্যে কিছুটা হলেও বাংলাতে মাটি শক্ত করে বঙ্গ-বিজেপি। কিন্তু এনআরসি, সিএএ সহ একাধিক ইস্যুতে কিছুটাই হলেও বাংলাতে ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি। হাতছাড়া হয়েছে একের পর এক পুরসভা, পঞ্চায়েত। তলানিতে জনপ্রিয়তা। শাসকদল তৃণমূলের পালটা চালে কার্যত কোনঠাসা বঙ্গ বিজেপি। এই অবস্থায় বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা তৃণমূলের।

বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন ২০০০ বিজেপি নেতা-কর্মী। উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালিতে এই দলবদলের ঘটনা ঘটেছে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের হাত ধরে তৃণমূলে যোগ দেন ওই সমস্ত বিজেপি সমর্থকরা।

জানা গিয়েছে, দলবদলের মধ্যে রয়েছেন সন্দেশখালি বিধানসভার মণিপুর অঞ্চল বিজেপির মণ্ডল সভাপতি অসীম মণ্ডল। তাঁর সঙ্গেই তৃণমূলে যোগ দেন ওই বিপুল সংখ্যক বিজেপি কর্মী। জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক তাঁদের হাতে দলের পতাকা তুলে দেন। দলবদলের পরেই বিজেপির বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন নেতা-কর্মীরা। একই সঙ্গে তাঁরা দাবি করেন, যেভাবে জোর করে দেশজুড়ে এনআরসি এবং সিএএ লাঘু করতে চলেছে বিজেপি, তাতে আমরা আতঙ্কিত। আর সেই কারণেই দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

অন্যদিকে, স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, জোর করে ভুল বুঝিয়ে বিজেপিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তাদের। কিন্তু যেভাবে সরকার এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সাধারণ মানুষের উপর চাপাতে চাইতে তাতে ক্ষুব্ধ তাঁরা। আর সেই কারণেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের আসার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। পাশাপাশি, মমতার উন্নয়নে সামিল হওয়ার জন্যেও তাঁরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের আসার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।