কলকাতা: শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে আবারও দলের অবস্থান স্পষ্ট করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ইকো পার্কে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতির স্পষ্ট জবাব, ‘শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দু’জনেই সচেতন মানুষ। কখন কী করতে হয় তা ওঁরা জানেন। সব জেনেই ওঁরা রাজনীতিতে এসেছেন।’’

ফের শিরোনামে শোভন-বৈশাখী। সৌজন্য দিলীপ ঘোষ। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে সেভাবে সক্রিয় ভূমিকায় দেখা যায়নি শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। দলে সক্রিয়ভাবে দেখা যায়নি শোভন-বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।

বরং দিন যত গিয়েছে ততই শোভন-বৈশাখীর সঙ্গে দূরত্ব বেড়েছে রাজ্য বিজেপির। বরাবর শোভন-বৈশাখীর দলে ভূমিকা নিয়ে বিজেপির অন্দরে জলঘোলা হয়েছে। এমনকী শোভন চট্টোপাধ্যায় ফের তৃণমূলে ফিরে যাবেন বলেও জল্পনা তৈরি হয়েছিল। বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের উদ্যোগে সেবার শোভনের বাড়িতে গিয়ে দেখা করেন দলের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেনন।

এখনও বিজেপিতেই আছেন শোভন-বৈশাখী। তবে তাঁকে নিয়ে রাজ্য বিজেপির অস্বস্তি এখনও কাটেনি। বরং তা আরও বেড়েছে ষষ্ঠীর দিনে। সেদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দিল্লি থেকে সল্টলেকের EZCC-এর দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করেছেন। আবার সেদিনই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর স্নেহের কাননের জন্য পাঠিয়েছেন উপহার। পাল্টা শোভন চট্টোপাধ্যায়ও উপহার পাঠিয়েছেন দিদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সাম্প্রতিক অবস্থান নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে চর্চা চলছেই। ষষ্ঠীর দিন তাঁকে তৃণমূলনেত্রীর উপহার পাঠানো এবং পাল্টা শোভনেরও দিদিকে উপহার দেওয়া, এসবে গুঞ্জন বাড়ছে। তবে কী ফের তৃণমূলেই ফিরছেন শোভন?

জল্পনার মাঝেই শোভন-বৈশাখী নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘‘শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দু’জনেই সচেতন মানুষ। কখন কী করতে হয় তা ওঁরা জানেন। সব জেনেই ওঁরা রাজনীতিতে এসেছেন।’’

দেশে এবং বিদেশের একাধিক সংবাদমাধ্যমে টানা দু'দশক ধরে কাজ করেছেন । বাংলাদেশ থেকে মুখোমুখি নবনীতা চৌধুরী I