স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: শুধু বদল নয়, চাই বদলা। রাজ্যে ফের পালাবদল ঘটলে এবং পদ্ম ফুটলে শুরু হবে বদলা নেওয়ার পালা।

বুধবার এই ভাষাতেই রাজ্যের শাসকদলকে আক্রমণ করলেন বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকার। সাফ জানিয়ে দিলেন যে যারা এখন বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালাচ্ছে তাদের কাউকেই ছাড়া হবে না।

এদিন কোচবিহারের মাথাভাঙা শীতলখুচী বিধানসভা কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয় বিজেপি যুব মোর্চার কর্মীসভা। সেই অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন বঙ্গ বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিৎ সরকার। সেখানেই সংবাদমাধ্যমের সামনে তিনি বদলা নেওয়ার কথা বলেন।

গুটি কয়েক বিধায়ক নিয়েই এই মুহূর্তে রাজ্যে অলিখিতভাবে বিরোধী দল হয়ে গিয়েছে বিজেপি। তবে শাসক তৃণমূল কংগ্রেসকে টক্কর দেওয়ার মতো জায়গায় যে পদ্ম শিবির এখনও পৌঁছায়নি তা বিলক্ষণ জানেন দেবজিৎ বাবু। তবে হাল ছাড়তে তিনি নারাজ। সেই বিষয়টি একটু ঘুরিয়ে তিনি বলেছেন, “ওরা(তৃণমূল) যদি আমাদের গোলাপ দেয় তাহলে আমরাও গোলাপ দেওয়ার চেষ্টা করব। গোলাপ না দিতে পারি গাঁদা তো দিতেই পারব।”

রাজ্যে নিরবাচন প্রক্রিয়া নিয়ে বিরোধী শিবিরের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। প্রতিটা নির্বাচনে শাসক শিবিরের বিরুদ্ধে ভোট লুঠ সহ নানাবিধ হামলার অভিযোগও উঠেছে বহুবার। এই অবস্থায় শাসক শিবিরকে পালটা জবাব দিতে যে পদ্ম শিবির প্রস্তুত তা বুঝিয়ে দিয়েছেন দেবজিৎ সরকার। যুব মোর্চার সভাপতির কথায়, “আমরা যেচে গিয়ে মারব না। তবে কেউ যদি মারে তাহলে অনেকদিন ধরে আমারা তার পিতৃপুরুষের পরিচয় আমরা ভুলিয়ে দেব।”

কোচবিহারে দেবজিৎ সরকার

কেউ যদি কোনও বিজেপি কর্মীর গায়ে হাত দেয় তাহলে গুনে গুনে বদলা নেওয়া হবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ। একদিন রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আসবে বলেও দৃঢ় বিশ্বাস রয়েছে তাঁর। তিনি বলেছেন, “ঘড়ির কাঁটা একদিকে চলে না। এটা বিধির লিখন।” একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “আমরা কিন্তু বদলা নয়, বদল চাই এইসব স্লোগান দিই না। আমরা বদলও চাই আবার বদলাটাও চাই।”

২০১১ সালে বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেসের স্লোগান ছিল ‘বদলা নয়, বদল চাই।’ ৩৪ বছরের বাম অপশাসন থেকে বঙ্গবাসীকে মুক্তি দিয়ে নতুন আংলা গড়ার ডাক দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা।