নয়াদিল্লি: ফের বিজেপি নেতার রোষের মুখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘রাক্ষুসে শাসন’ চালাচ্ছেন বলে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ জিভিএল নরসিমা রাও। একইসঙ্গে ক্রমেই পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি আরও খারাপ হচ্ছে বলে দাবি করেন ওই বিজেপি নেতা। এব্যাপারেও রাজ্য সরকারের কড়া সমালোচনা করেন বিজেপির ওই নেতা।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বেনজির আক্রমণ বিজেপি নেতা জিভিএল নরসিমা রাওয়ের। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার পরিবেশ নিয়ে বলতে গিয়ে ওই বিজেপি নেতা বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘রাক্ষুসে শাসন’ চালাচ্ছেন। বাংলায় একের পর এক হিংসার ঘটনা অকল্পনীয়। এটা আর সহ্য করা যাচ্ছে না।’

পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক অবস্থা নিয়ে উদ্বিগ্ন বিজেপি সাংসদ জিভিএল নরসিমা রাও। বুধবার রাজ্যসভার বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তকে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে তীব্র হেনস্থার শিকার হতে হয়েছিল। একটি ঘরের মধ্যে আটকে রাখা হয় বিজেপি সাংসদকে। তা নিয়েও তাঁর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ওই বিজেপি নেতা।

সেই প্রসঙ্গে সংসবাদ সংস্থা এএনআইকে তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্রকে কীভাবে বারবার খুন করা যায় পশ্চিমবঙ্গে তা চোখের সামনে দেখছি। নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বলতে গেলে বিশ্বভারতীতে গুপ্তকে একটি ঘরে বন্দি করে রাখা হয়। এই ঘটনারও সাক্ষী থাকলাম আমরা। আসলে পশ্চিমবঙ্গে এখন রাক্ষুসে শাসন চলছে’।

এরই পাশাপাশি বাংলায় রামের নামে স্লোগান তুলতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি নেতা জিভিএল নরসিমা রাও। দুর্গাপুজোর বিসর্জনের অনুমতি দেওয়া নিয়েও রাজ্যকে খোঁচা দিয়েছেন তিনি। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বাংলার মানুষ ভগবান রামের নাম নিতে পারছেন না। দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের শোভাযাত্রার অনুমতি দেওয়া হয়নি। এটা রাক্ষুসে নিয়ম’।

এখানেই থেমে না থেকে ওই বিজেপি নেতার আরও হুঁশিয়ারি, ‘অপকর্ম সীমা ছাড়ালে ঈশ্বরকে হস্তক্ষেপ করতে হয়। বোঝাই যাচ্ছে, মমতার শাসনও খুব তাড়াতাড়িই শেষ হবে’,।