নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: ফের একবার বিতর্কে বিজেপি নেতা৷ বীরভূমে বিজেপির জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়ের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বিতর্ক মাথাচাড়া দিল৷ সূত্রের খবর, এক জনসভায় তিনি তৃণমূলের প্রতি তোপ দাগতে গিয়ে তৃণমূলকে ‘পাগল কুকুরের’ সঙ্গে তুলনা করেন৷ পাগল কুকুরকে মুগুর দিয়ে মারার মতো তৃণমূলকে মারার পরামর্শও দেন৷ আর প্রকাশ্যে জনসভায় তার এই পরামর্শ নিয়েই রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন৷

তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে হেরে যাওয়ার পর খ্যাপা কুকুরের মত হয়ে গিয়েছে৷ দিনের বেলা না পারলে রাতে কামড়ানোর চেষ্টা করছে৷ কুকুরের জন্য মুগুর লাগে৷ সঙ্গে মুগুর রাখবেন৷ কামড়াতে এলে উপযুক্ত জবাব দেবেন৷’

রামকৃষ্ণ রায়ের এই মন্তব্য সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এক বৈদ্যুতিন মাধ্যমকে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ‘রামকৃষ্ণ বাবু নিজেই মুগুরটা তুলে নিন না৷ কর্মীদের আদেশ দিয়ে নিজে ঠান্ডা ঘরে বসে থাকবেন?’

পড়ুন: পুলিশের গুলিতেই জখম বিজেপি কর্মীরা, বলছেন পাত্রসায়রের প্রত্যক্ষদর্শীরা

প্রসঙ্গত, ভোট পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন দল থেকে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ার হিড়িক পড়েছে বলে অনেকেরই মত৷ আর রাজ্যে শাসসকদল থেকেও বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে বারবারই মন্তব্য করেছেন মুকুল রায় থেকে দিলীপ ঘোষ, অর্জুন সিং প্রমুখরা৷ তাঁদের দাবি, আগামিদিনেও তৃণমূল শিবির থেকে অনেকেই বিজেপিতে যোগ দেবেন৷ আর বিজেপিতে যোগ দেওয়া নতুন কর্মী-সমর্থকদের এর আগেও জুনের মাঝামাঝি সময়ে রামকৃষ্ণ রায় পরামর্শ দিয়েছিলেন, হাতে লাঠি-বাঁশ তুলে নেওয়ার৷

তিনি কর্মীদের জানিয়েছিলেন, যেখানে একসঙ্গে কর্মীরা থাকবেন সেখানেই যেন হাতে লাঠি তুলে নিতে, কারণ পথে-ঘাটে নানা জন্তু-পোকামাকড় বের হচ্ছে৷ তাঁর এই পরামর্শের পাল্টা অনুব্রত জানিয়েছিলেন, দলের যোগদানকারীদের হাতে লাটি-বাঁশ তোলার আগে, তক্ষমতা তাকলে একবার তিনি নিজেই তুলে দেখান৷

রবিবার সেই একই বিষয়েরই যেন প্রতিফলন ঘটল৷ বিজেপি কর্মীদের দেওয়া পরামর্শকে রামকৃষ্ণ রায় আগে নিজে করে দেখান, তেমনই পাল্টা দিলেন অনুব্রত মন্ডল৷