লখনউ: আসন্ন ধনতেরাস উপলক্ষে উত্তর প্রদেশের বিজেপি নেতা গজরাজ রাণা সাধারণ মানুষদের গয়না কেনার পরিবর্তে তরোয়াল কেনার পরামর্শ দিলেন। প্রতিবছরের মোট এবারেও দিওয়ালির আগে ধনতেরাসে মেতে ওঠেন সাধারণ মানুষ আর সেই উপলক্ষে বিভিন্ন জিনিস কিনে থাকেন। এবছরেও ২৫ অক্টোবর ধনতেরাস পালন করা হবে।

দেওবন্দের বিজেপি নেতার মতে, অযোধ্যা মামলা নিয়ে বর্তমানে পরিস্থিতি উতপ্ত হয়ে রয়েছে আর তাই আগেভাগে তরোয়াল কিনে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের প্রস্তুত হয়ে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

সাংবাদিকদের সামনে তিনি জানান, দেশের মানুষ চান অযোধ্যা তে ভগবান রামের মন্দির। যার ফলে তারা ভগবান রামের দর্শন পেতে পারেন। রাণা জানান, সুপ্রিম কোর্ট খুব দ্রুত এই মামলার রায় দেবেন। রায় যে রাম মন্দিরের পক্ষেই যাবে তা নিশ্চিত। আর তাতেও পরিস্থিতি জটিল হয়ে উঠতে পারে। যে কোন রকম সমস্যার মোকাবিলা করার জন্য এই তরোয়াল কিনে রাখার নির্দেশ দিচ্ছেন।

তরোয়াল কেনার প্রসঙ্গে তাকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, ‘দেশের অবস্থা খুব খারাপ আর এই পরিস্থিতিতে নিজেদের রক্ষা নিজেদেরকেই করতে হবে’।

যদিও তার এই মন্তবের পরে তীব্র সমালোচনার মুখেও পরেছিলেন। সেখানকার বিজেপি নেতৃত্ব জানিয়ে দেন তাঁর করা মন্তব্যতে সমর্থন নেই দলের। উত্তর প্রদেশের বিজেপি মুখপাত্র জানিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি এই ধরনের ভাষা যা তিনি ব্যবহার করেছেন তা একেবারেই সমর্থন করে না। এতি ওনার ব্যক্তিগত মতামত। দলের তরফ থেকে সকলকে নির্দেশ দেওয়া রয়েছে কোন কিছু করা বা বলার ক্ষেত্রে আইন মেনে চলতে হবে। কেউই আইনের উপরে নয়।

যদিও এর আগেও গজরাজ রাণা বিতর্কের মুখে পরেছেন। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের সময় দেওবন্দের দারুল উলম বিশ্ববিদ্যালয়কে সন্ত্রাসের জায়গা বলেছিলেন। এছাড়াও মক্কার ভিতরে শিব লিঙ্গ রয়েছে বলেও বিতর্ক বাধিয়েছিলেন তিনি।