স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শহরের রাস্তায় ট্যাক্সিচালকের হেনস্থার শিকার খোদ তৃণমূল সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। তাঁকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি এবং অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করার অভিযোগ উঠেছে বাবা যাদব নামে এক ট্যাক্সিচালকের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় মিমি চক্রবর্তীকেই কটাক্ষ করলেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ তথা বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা।

অনুপম ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, “এখন তো সংসদের অধিবেশন চলছে, সাংসদ এখন কলকাতায় কেন জিম করে বেড়াচ্ছেন বুঝতে পারলাম না। এলাকায় তো যান না। অন্তত সংসদে গিয়ে যাদবপুরবাসীর জন্য দু-চারটে প্রশ্ন তুলতে পারতেন। আর সেটাও না তুলতে পারেন, তাহলে অন্তত পার্লামেন্টে গিয়ে ‘পাউট’ করে দু চারটে সেলফি তো তুলতে পারতেন।”

উল্লেখ্য, ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে সংসদের বাদল অধিবেশন। ট্যাক্সি থেকে কটূক্তি এবং অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করায় গাড়ি থেকে নেমে সোমবার দুপুরে এক ট্যাক্সিচালককে পুলিশের হাতে দিয়েছেন সাংসদ-অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী।

অভিযোগে সাংসদ জানিয়েছেন, সোমবার রাতে জিম থেকে একাই বাড়ি ফিরছিলেন মিমি। সঙ্গে দেহরক্ষী ছিলেন না। বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাটের মাঝামাঝি রাস্তায় সিগন্যাল থাকায় তাঁর গাড়িটি বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকে। হঠাৎ ওভারটেক করে তাঁর গাড়ির পাশে এসে পৌঁছয় এক ট্যাক্সি।

হঠাৎ তিনি লক্ষ্য করেন, ওই ট্যাক্সির চালক তাঁর দিকে তাকিয়ে অশ্লীল অঙ্গিভঙ্গি করছে। সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে ওই ট্যাক্সিচালককে বের করে এনে তাকে সাবধান করেন তিনি। সে সময় ওই ব্যক্তি মত্ত অবস্থায় ছিল। অভিযোগ, তখনই মিমি চক্রবর্তীকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করতে ওই ট্যাক্সিচালক।

রাস্তায় জটলা হয়ে যাওয়ায় তখনকার মতো গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে যান মিমি। সোজা গড়িয়াহাট থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। এর পর রাতেই ইএম বাইপাসের ধারে আনন্দপুর থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।

ধৃতের বিরুদ্ধে ভারতীয় সংবিধানের ৩৫৪, ৩৫৪এ, ৩৫৪ডি এবং ৫০৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ওই ট্যাক্সিচালককে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

গ্রেফতারি প্রসঙ্গে অনুপম হাজরা লিখেছেন, “তৃণমূল সাংসদের(পড়ুন মিমি চক্রবর্তী) দাবি, ‘চোখ মেরেছে’ ট্যাক্সি ড্রাইভার!!! অবশ্যই অন্যায় হয়েছে, শাস্তি হওয়া উচিত, ট্যাক্সি ড্রাইভারকে সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতারও করা হয়েছে!!!

কিন্তু পুলিশ যে সমস্ত ধারা দিয়েছে, আমিতো ভাবলাম ট্যাক্সি ড্রাইভার সাংসদকে খুন করতে গেছিল কিন্তু ঠিক এই ঘটনা যদি বিজেপির কোনও মহিলা সাংসদের ক্ষেত্রে ঘটতো, তাহলে মনে হয় পুলিশের তরফে ট্যাক্সি ড্রাইভারকে শাস্তি দেওয়া তো দূর, সম্ভবত বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হত!!!

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।