বর্ধমান (পূর্ব বর্ধমান) :- কাটমানি কাণ্ডে তৃণমূল নেতাদের উপর আক্রমনের ঘটনায় কোনও বিজেপি নেতা কিংবা কর্মী জড়িত নয়। এমনটাই দাবী করে গেলেন বিজেপির কিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল।

গোটা রাজ্যের পাশাপাশি বর্ধমান জেলাতেও কিষাণ মোর্চা এবং জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে বিজেপি কর্মীদের ওপর শাসকদলের সন্ত্রাস, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো সহ কৃষকদের জন্য একাধিক দাবীতে পৃথক পৃথকভাবে জেলাশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারদের স্মারকলিপি দেওয়া হয়। হাজির ছিলেন বিজেপির কিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল, জেলা বিজেপির সভাপতি সন্দীপ নন্দী, কিষাণ মোর্চার জেলা সভাপতি জয়দীপ চট্টরাজ প্রমুখরাও।

গোটা রাজ্যের অন্যান্য জেলার পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও কাটমানি কাণ্ডে বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল নেতাদের ওপর হামলা, বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। কিন্তু এদিন এই ব্যাপারে এই সমস্ত ঘটনায় বিজেপি মোটেও যুক্ত নয় বলে দাবী করে গেলেন রামকৃষ্ণবাবু।

তিনি জানিয়েছেন, গ্রামে গ্রামে সাধারণ মানুষের জনরোষ তৈরী হচ্ছে। এদের ইন্ধন জোগাচ্ছে তৃণমূলেরই একাংশ। এর সঙ্গে বিজেপি যুক্ত নয়। এদিন কিষাণ মোর্চার জেলা সভাপতি জয়দীপ চট্টরাজ জানিয়েছেন, কোথায় কোথায় তৃণমূলের নেতারা কত টাকা কি কি খাতে নিয়েছেন, এলাকা ভিত্তিক তার তালিকা তৈরী করা হচ্ছে। সেই তালিকা বিডিও -র হাতে জমা দিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেবার আর্জি জানানো হবে। কিন্তু তাতেও যদি কাজ না হয় তাহলে তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলবেন।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরে কাটমানি-কান্ডে উত্তাল গোটা বাংলা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাটমানি নির্দেশের পরেই জেলায় জেলায় বিক্ষোভ-আন্দোলন তৈরি হয়েছে। তৃণমূল নেতাদের ঘিরে ধরে কাটমানির টাকা ফেরতের দাবি জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এই অবস্থায় রীতিমত অস্বস্তিতে পড়েছে শাসকদল তৃণমূল। এভাবে বিক্ষোভ-আন্দোলন কর্মসূচির পিছনে বিজেপি রয়েছে বলে ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে তৃণমূল একাংশই। এই অবস্থায় বিজেপি নেতার দাবি, এই আন্দোলন-বিক্ষোভ সাধারণ মানুষের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। এর পিছনে বিজেপি নেই বলে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছেন বিজেপির কিষাণ মোর্চার সভাপতি।